যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে কারারক্ষী নিয়োগে টাকার ছড়াছড়ি

0
508

নির্বাচনী দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তাদের নিকট চুড়ান্ত তালিকা প্রস্তুতের অভিযোগ
এম আর রকি : যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের মাঠে কারারক্ষী নিয়োগে সম্পূর্ন ডিজিটাল পদ্ধতিতে অর্থনৈতিক কার্যক্রম চলছে। ডিজিটাল পদ্ধতিতে কারারক্ষী নিয়োগে সুক্ষèভাবে টাকার ছড়াছড়ি হচ্ছে সর্তকতার মাধ্যমে। যারা টাকা দিয়ে নিয়োগ নিশ্চিত করেছে তাদের চাকুরী ঠেকায় কে?
গত ২৬ এপ্রিল বুধবার যশোর কেন্দ্রীয় কারাগার প্রাঙ্গনে খুলনা বিভাগের ১০ জেলার অধীনে বসবাসকারী নূন্যতম এসএসসি ও সমমান পাশ শিক্ষিত যুবকদের রক্ষী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়। যারা ইতিমধ্যে এসএমএস এর মাধ্যমে কারারক্ষী নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশ গ্রহনের এসএম এস পেয়েছেন তারা কারাগারের মাঠে অবস্থান নেয়। সূত্রগুলো জানিয়েছেন,গত বুধবার সকালে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের মাঠে প্রথম পর্যায়ে শারিরীক মাপঝোক শুরু হয়। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে খুলনা বিভাগে যে জেলা থেকে কারারক্ষী নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করা হবে তাদের নিয়ে শুরু হয় মাপঝোক। নিয়োগ প্রক্রিয়ার প্রথম দিনে দেড় সহ¯্রাধিক যোগ্যতা সম্পন্ন যুবকদের শারিরীক মাপঝোক প্রক্রিয়া কার্যক্রম চলে। পরের দিন মাপঝোক প্রক্রিয়ার এক পর্যায় বৃহস্পতিবার বিকেলে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত পরীক্ষা সম্পন্নর পর গভীর রাতে শুরু হয় মৌখিক পরীক্ষা। কারারক্ষী নির্বাচনী পরীক্ষা বাস্তবায়নে গত ২৫ এপ্রিল কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মোছাঃ জাহানারা খাতুন,গোপালগঞ্জ জেলা কারাগারের সুপার ইকবাল হোসেন,বাগের হাট জেলা কারাগারের সুপার গোলাম দস্তগীর ও যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে জেলার আবু তালেব দায়িত্ব পালন করছেন। সূত্রগুলো বলেছে,কারারক্ষী নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে নির্বাচনী পরীক্ষার সভাপতি পদে সিনিয়র জেল সুপার জাহানারা খাতুন,সদস্য সুপার ইকবাল হোসেন,গোলাম দস্তগীর ও সদস্য সচিব হিসেবে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু তালেব দায়িত্ব পালন করছেন। নির্বচনী পরীক্ষায় অংশ গ্রহনকারী প্রার্থীদের অনেকে জানান,মৌখিক পরীক্ষায় ভারতের অমিতাভ বচ্চনের মায়ের নাম কি এমন ধরনের বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যারাত থেকে শুরু হওয়া মৌখিক পরীক্ষায় যাদেরকে প্রশ্ন করা হয়েছে তাদেরকে জানিয়ে দেওয়া হয় পরবর্তীতে মোবাইলের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে ফলাফল। বৃহস্পতিবার রাতে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ জেলার প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা ও শুক্রবার দুপুর থেকে যশোর খুলনা,সাতক্ষীরা জেলার প্রার্থীদের নিয়ে মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। নির্ভরযোগ্য সূত্রগুলো জানিয়েছে,এবার কারারক্ষী নিয়োগে মাথাপিছু দর উঠেছে ১০ থেকে ১২লাখ টাকা। অর্থনৈতিক লেনদেন হচ্ছে ডিজিটাল সূক্ষভাবে। খুলনা বিভাগের ১০ জেলা থেকে এবার নিয়াগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে ১১৩ থেকে ১১৭ জন রক্ষী নিয়োগ করা হবে বলে সূত্রগুলো দাবি করেছেন। খুলনা বিভাগের ১০ জেলার কোন জেলায় কতজন নিয়োগ দেওয়া হবে এমন নির্দিষ্ট দিক নির্দেশনা রাখা হয়নি বিজ্ঞপ্তিতে। অপর একটি সূত্র বলেছে,কারারক্ষী নিয়োগে যাদের নিয়োগ চুড়ান্ত করা হচ্ছে তাদের একটি তালিকা ইতিমধ্যে চুড়ান্ত করা হয়েছে। কারারক্ষী নির্বাচনী পরীক্ষায় যারা দায়িত্ব পালন করছেন তাদের কাছে যাদেরকে চুড়ান্ত করা হবে তাদের একটি তালিকা ইতিমধ্যে দেওয়া হয়েছে। আজ অথবা আগামীকাল রোববার সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন হচ্ছে বলে সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছেন। সূত্রগুলো দাবি করেছে,নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অর্থনৈতিক লেনদেন রাখা হচ্ছে ডিজিটাল পদ্ধতির উর্ধ্বে। এ ব্যাপারে কারারক্ষী নির্বাচনী পরীক্ষার সভাপতি,সদস্য ও সদস্য সচিবের মোবাইল নাম্বারে ফোন করা হলে গত ২৬ এপ্রিল থেকে বন্ধ পাওয়া যাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here