যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বাংলা নববর্ষ পালিত হয়েছে

0
330

বিশেষ প্রতিনিধি : বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানিয়ে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের বন্দি ও কারাগারে কর্মরত কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা ব্যতিক্রম আয়োজনের মাধ্যমে পালন করেছে। শুক্রবার সকালে বন্দিদের ব্যান্ড দলের সাহায্যে বন্দীদের র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালীতে বন্দিরা হাতি,ঘোড়া,তৈরী করে রং মেখে বিভিন্ন সাজে র‌্যালীতে অংশ নেয়। র‌্যালী শেষে পান্থাভাতের সাথে ভাজি মাছ,মরিচ,পেয়াজ,দুপুরে সাদা ভাতের সাথে মাছ ভোনা,আলু ভর্তা,বেগুন ভর্তা,ডালভর্তা রাতের খাবারে খিচুড়ী,গরুর মাংস,মিষ্টি পান সুপারী পরিবেশন করা হয়। সরকার চাকুরী জীবিদের জন্য বৈশাখী ভাতার পাশাপাশি এ বছর বন্দি কয়েদী ও হাজতীদের জন্য মাথাপিছু ৩০ টাকা বরাদ্ধ করেছে। জেলার আবু তালেব জানান,যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে পহেলা বৈশাখের দিন ১৫৭১জন বন্দির জন্য বাংলা নববর্ষের দিন বিনোদন মূলক কর্মসূচী ও বাঙ্গালী খাবারের ব্যবস্থা ছিল। জেলা আরো জানান, কারাগারের অভ্যন্তরে বন্দিদের উদ্দেশ্যে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বন্দিরা সম্মিলিতভাবে প্রথমে এসে হে বৈশাখ গান পরিবেশন করেন। বন্দিদের মাঝে মোহাম্মদ আলী কেলে, আব্দুল মান্নান,সুজন,রিপন,আলমগীর হোসেন বাংলা নববর্ষ উপলক্ষ্যে গান পরিবেশন করে সকলকে মাতিয়ে তোলে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানকে আরো সমৃদ্ধ ও সুন্দর করতে বাইরে থেকে শিল্পী আশরাফুল,মুকুল গান পরিবেশ করেন। ভিতরের পাশাপাশি বাহিরে মহিলা শিল্পীদ্বারা মহিলা বন্দিদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সেময় মহিলা বন্দিরাও বিভিন্ন গান পরিবেশন করেন। মহিলা বন্দি লিপি,বৃষ্টি,রিনা গান পরিবেশন করে সকলকে মুদ্ধ করেন। জেলার আরো জানান, এ বছর পহেলা বৈশাখকে আরো আর্কষন করে তুলতে পুরুষ বন্দিদের দ্বারা তৈরী করা বৈশাখী পাঞ্জাবী এবং মহিলা বন্দিদেরদ্বারা তৈরী করা হয় বৈশাখীর শাড়ী। বৈশাখী উপলক্ষ্যে তৈরী করা পাঞ্জাবী ও শাড়ী গায়ে জড়িয়ে এবছর বাংলা নববর্ষকে অনাড়ম্বর ভাবে উৎসব পালন করেছেন বন্দিরা। বন্দিদের পাশাপাশি কারাগারে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা সকালে নববর্ষকে স্বাগত জানিয়ে র‌্যালী বের করেন। সকাল ৯ টায় ডিআইজি প্রিজন্স খুলনা বিভাগীয় টিপু সুলতানের নেতৃত্বে বৈশাখী র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীতে কারা ব্যান্ডদলসহ কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বৈশাখীর র‌্যালীতে অংশ নেয়। বিভিন্নসাজে র‌্যালীতে অংশ শেষে সকলে পান্থাভাত,আলুভর্তা,মাছভাজি,মরিচ,পেয়াজ খেয়ে উদযাপন করে বৈশাখীর প্রথম সকাল বেলা। বিকেলে সকাল কর্মকর্তা কর্মচারীরা পরিবারসহ অনুষ্ঠিত হয় খেলাধুলা এবং যেমন খুশী তেম সাজা। এ সময় মহিলাদের আয়োজনে চামপ খেলা,বালিশ খেলা,বেগুন বাঁচানো খেলার আয়োজন করা হয়। খেলাধুলা শেষে কারা পরিবারের সদস্যদের সন্তানদের মাঝে জিপিও-৫ প্রাপ্তদের পুরস্কৃত করা হয়। ডিআইজি প্রিজন্স টিপু সুলতান প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের মাঝে পুরুস্কার বিতরণ করেন। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে সিনিয়র জেল সুপার মোঃ কামাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন। পুরুস্কার বিতরণ শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে কারা পরিবারের সদস্যরা ছবাড়াও বাইরে থেকে অতিথি শিল্পীরা গান পরিবেশন করে গোটা অনুষ্ঠানকে মুগ্ধ করে তোলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here