যশোর জেলা রেজিষ্ট্রার অফিসে নৈশ্য প্রহরী পদে যোগদানে নুরু সিন্ডিকেটের ৪লাখ টাদা দাবি

0
395

সদ্য যোগদানকারী প্রহরী আব্দুল হান্নানকে সকলের সামনে
মারতে মারতে দোতলা থেকে নিচে নামিয়ে আনা হয়
এম আর রকি যশোর: সোমবার বিকেলে যশোর জেলা রেজিষ্ট্রার এর কার্যালয়ে নৈশ্য প্রহরী পদে চাকুরীতে যোগদান করার পর ওই চত্বরে থাকা সন্ত্রাসীদের হাতে আব্দুল হান্নান নামে এক যুবক লাঞ্চিত হয়েছেন। তিনি এ ঘটনায় কোতয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার আলীগাঁও আছলামপুর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে আবদুল হান্নান জানান, সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ সরকারের নিবন্ধন পরিদপ্তরের মহা-পরিদর্শক নিবন্ধন খান মো:আব্দুল হান্নান স্বাক্ষরিত আদেশে স্মারক নং-নিপ/রেজিঃশাখাঃ-২/৮৬৭৬(৫) তারিখঃ০৫/০৬/১৭ মোতাবেক নৈশ্য প্রহরী পদে যোগদান করতে যান। সে জেলা রেজিষ্ট্রার কার্যালয়ে যোগদান পত্র জমা দেওয়ার পরপর নুরু,আতিয়ার,রবিউল,হিরাসহ কয়েকজন অর্তকিতভাবে যুবক আব্দুল হান্নানকে এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট করতে করতে দোতলা থেকে নিচে নামিয়ে আনে। চরমভাবে লাঞ্চিতর শিকার যুবক বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার দিলে ওই অফিসের কয়েকজন কর্মচারী ও ওই কার্যালয়ের সামনে থাকা ব্যক্তিরা তাকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেন। সূত্রগুলো জানান, নৈশ্যপ্রহরী পদে আব্দুল হান্নান যোগদান করতে যশোরে আসার সাথে সাথে ওই অফিসে অবস্থানকৃত নুরু,আতিয়ার,হিরা,নেছার আহমেদ,রবিউলসহ একটি গ্রুপ তার কাছে ৪ লাখ টাকা দাবি করেন ।

টাকা না দিলে তাকে যোগদান করতে দেবে না বলে হুমকী দেওয়ার এক পর্যায় অফিস থেকে তাড়িয়ে দেন। উপায়ূন্তর না পেয়ে সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত যুবক আব্দুল হান্নান সুযোগ বুঝে দোতলায় ঢুকে যোগদান করেন। যোগদান করার পর তার উপর নেমে আসে এলোপাতাড়ী ঘুষি ও টান হেচড়া। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,নুরু মনিরামপুর উপজেলা রেজিষ্ট্রি অফিসের অফিস সহায়ক। সে জেলা রেজিষ্ট্রার কার্যালয় নিয়ন্ত্রন করেন। হিরা ওই অফিসে চুক্তিভিত্তিক দায়িত্ব পালন করেন। আতিয়ার রেকর্ড রুমের অফিস সহায়ক (এমএল এসএস) পদে দায়িত্ব পালন করেন। এ ব্যাপারে আতিয়ারের সাথে তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ঘটনার সময় তিনি রেকর্ড রুমে (তৃতীয়তলা) অবস্থান করছিল। পরে তিনি নিচে এসে শুনেছেন। এ ব্যাপারে ওই অফিসের প্রধান সহকারী ইব্রাহীমের নাম্বারের যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে অফিস সহকারী রবিউলের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আব্দুল হান্নানকে যোগদানের পর অপরিচিত এক যুবক ডেকে নিচেই নিয়ে যায়। পরবর্তীতে তিনি শুনেন যোগদানকৃত ওই যুবক আব্দুল হান্নানকে মারপিট করা হয়েছে।ঘটনার কিছুক্ষন পূর্বে প্রধান সহকারী ইব্রাহিম হোসেন টিফিনে ছিলেন। এ ব্যাপারে সাব-রেজিষ্ট্রার বাশার মাহমুদের ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, বেলা আড়াইটার সময় তিনি বাসায় চলে যান। কোন কিছু জানতে হলে জেলা রেজিষ্ট্রারের সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দেন। সর্বশেষ ওই কার্যালয়ের জেলা রেজিষ্ট্রার নৃপেন্দ্র নাথ শিকদারের ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগের চেস্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here