যশোর বাঘার পাড়া উপজেলায় মায়ের বিরুদ্ধে শিশু সন্তান হত্যার অভিযোগ

0
1597

বিশেষ প্রতিনিধি: যশোর বাঘারপাড়া উপজেলা এলাকায় এক মায়ের বিরুদ্ধে মিনহাজ (৪) নামে এক শিশুকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত শিশু সদর উপজেলার জোড়াদাহ গ্রামের ইমদাদুল হক পলাশের ছেলে। শিশু নিহতের ঘটনাটি মঙ্গলবার দুপুরে বাঘারপাড়া উপজেলার তেলকুপ গ্রামে নানা আব্দুল মালেকের বাড়িতে ঘটেছে বলে দাবি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানা পুলিশ হতভাগ্য মাসহ ৪জনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।
নিহত শিশুর পিতা ইমদাদুল হক পালাশ ও দাদা ইনছান আলী পুলিশকে জানান, গত পাঁঁচ বছর আগে পারিবারিক ভাবে নিহত শিশুর পিতা ইমদাদুল হক পলাশের সাথে শিশুর মা ছালমা বেগমের বিবাহ হয়। গত এক বছর আগে থেকে নিহত শিশুর মা ছালমা কোন এক ব্যক্তির সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে ৷ বিভিন্ন সময় তারা মোবাইলে কথা বার্তা বলতো। পরকিয়া প্রেমের কারনে বেশ কিছু দিন ধরে স্বামী স্ত্রীর ভিতর গোলোযোগ লেগেই থাকতো। গত ৮ই আগষ্ট মঙ্গলবার নিহত শিশুর পিতার বাড়িতে নানা বাড়ির লোকজন এসে শালিশ বসায়, কিন্তু শালিশে মিমাংশা না হওয়ার কারনে ঐ দিন নিহত শিশুসহ তার মা ছালমা নানা বাড়িতে চলে যায়। এরপর ১৫ই আগষ্ট দুপুরে নিহত শিশুর খালু ইব্রাহিম নানা বাড়ির পাশের পুকুরের পাটের জাগের নিচ থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে৷ তারপর নিহত শিশুর পেটে চাপ দিয়ে ঘুরিয়ে পেট থেকে পানি বের করার চেষ্টা করেন। কিন্তু পেট থেকে পানি বের না হওয়ার কারনে শিশুটি মারা গেছে নিশ্চিত হন ইব্রাহিমসহ স্থানিয়রা। এরপর নিহত শিশুর দাদা বাড়িতে মোবাইলে মৃত্যুর খবর দেয়া হয়। মঙ্গলবার বিকালে খবর পেয়ে নিহত শিশুর দাদা, পিতাসহ গ্রামের লোকজন শিশুটির নানা বাড়িতে যায়। তারা স্থানিয়দের কাছ থেকে জানতে পারেন শিশু মিনহাজকে তার মা ছালমা পুকুরের পানিতে ডুবিয়ে মেরে ফেলে পাট জাগের নিচে রেখে দেয়। পরে শিশুটির খালু ইব্রাহিম পাট জাগের নিচ থেকে শিশুকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় নিহত শিশু মিনহাজের পিতা ইমদাদুল হক পলাশ বাঘারপাড়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। বাঘারপাড়া থানা পুলিশ শিশুটির পিতার অভিযোগের ভিত্তিতে ১৫ই আগষ্ট রাতে নানা বাড়ি থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে। বুধবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। শিশু নিহতের ব্যাপারে জানতে চাইলে বাঘারপাড়া থানার এস আই তরুন কুমার কর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, থানায় জিডি হয়েছে। নিহত শিশুর মা ছালমাসহ নানা বাড়ির লোকজন বলেছে শিশুটি খেলতে যেয়ে পানিতে ডুবে মারা গেছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত শিশুর মা ছালমা, খালু ইব্রাহিম, নানীসহ ৪জনকে থানায় আনা হয়েছে। ময়না তদন্তের পর মৃৃত্যুর সঠিক কারন জানা যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here