যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের ঐতিহাসিক শতবর্ষী গাছ কাটার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে সড়ক বিভাগ

0
357

জিয়াউল হক : যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের দু’ধারে থাকা ঐতিহাসিক শতবর্ষী গাছ কাটার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে সড়ক বিভাগ। গাছ রেখেই রাস্তাটির সংস্কার ও সম্প্রসারণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে প্রশাসন।
তবে সংশোধিত এই প্রকল্পের সম্প্রসারণ কাজ কতটুকু কাজে আসবে এ প্রশ্ন স্থানীয়দের। জমি অধিগ্রহণের মাধ্যমে নতুন সড়ক নির্মাণের কথা বলছেন অনেকেই।
মায়ের গঙ্গাস্নানের যাওয়ার পথ ছায়াময় কর তে ১৮৪০ সালে যশোরের বকচর থেকে ভারতের নদীয়ার গঙ্গাঘাট পর্যন্ত প্রায় ৮০ কিলোমিটার রাস্তা জুড়ে বট, অশ্বত্থ, শিরীষ, শিশু, মেহগনির কয়েক হাজার গাছ রোপন করেন জমিদার কালিপোদ্দার।
সম্প্রতি যশোর-বেনাপোল মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করার সিদ্ধান্তে অলোচনায় আসে কালের সাক্ষী ১৭৫ বছরের পুরানো এসব গাছ। প্রকল্প বাস্তবায়নে গাছ কাটার কথা থাকলেও স্থানীয়দের প্রতিবাদ-আন্দোলনে সিদ্ধান্ত বদলে যায়।
সংশোধিত প্রকল্পে সড়কটি চার লেন করার পরিবর্তে এখন দুপাশে ৩ ফুট করে সম্প্রসারণ ও সংস্কারের কাজ করা হবে। এজন্য দরপত্রের প্রক্রিয়াও চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।
যশোর সওজের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. সুরুজ মিয়া জানান, ডিপিপির মূল উদ্যেশ্য ছিল এখানে ১.৫ মিটার করে উভয় পক্ষে প্রশস্ত করে রাস্তা সম্প্রসারণ করা। এখানে গাছ কাটা নিয়ে কথা বলায় আমাদের মন্ত্রনালয়ে নির্দেশ মোতাবেক আমরা যেখানে সম্ভব সম্প্রসারণ করব। যেখানে সম্ভব না সেখানে করব না। কারন গাছ অনেক প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছে।
তবে সংশোধিত প্রকল্পের যথার্থতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে যশোরবাসী।
এক বাসিন্দা জানান, এটা কখনও সম্ভব না। কারন এখানে ৩ ফিট পরিমান জায়গা নেই। যাতে এ রাস্তা সম্প্রসারন করা যাবে। রাস্তাটা ভাল করতে পারে যাতে টেন্ডারগুলা ভাল করে করে কাজটা ভাল করে তদারকি করতে পারে। এটে রাস্তাটা ভাল হলে যাতাযাতে মানুষের সুবিধা হবে।
যশোর-বেনাপোল সড়কের অর্থনৈতিক দিক বিবেচনায় নিয়ে বিকল্প মহাসড়ক নির্মাণের কথা বলছেন বিশিষ্টজনেরা।
লেখক ও সাংবাদিক মুক্তিযোদ্ধা রুকুনউদ্দৌলাহ জানান, কোথাও হয়ত দেড় ফিট জায়গা পাওয়া যাবে, কোথাও দুই ফিট পাবেন। পুরো তিন ফিট তিন ফিট করে রাস্তা বাড়ানো সম্ভব হবে বলে আমি মনে করি না। এটা একটা হ-য-ব-র-ল অবস্থা হবে। বিকল্প হিসেবে সরকারের উচিত জমি অধিগ্রহন করে নতুন সড়ক নির্মাণ করা।
৩২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের নির্মাণ কাজ বাস্তবায়নের সময় ধরা হয়েছে ২০১৭ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here