যশোর শিক্ষাবোর্ড স্কুল এন্ড কলেজের ভর্তি যুদ্ধ চরম বিশৃঙ্খলা ও অনিয়মের মধ্যে অনুষ্ঠিতর অভিযোগ

0
325

বিশেষ প্রতিনিধি : চরম বিশৃংখলা অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার মধ্যে যশোর শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজে শিশু শ্রেনী থেকে শুরু করে অষ্টম শ্রেনীতে ভর্তি ইচ্ছুক আগ্রহী শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষায় প্রায় ৪ হাজার ছাত্রছাত্রী অংশ নেয়। আসন বিন্যাসে অনিয়ম ছাড়াও প্রবেশ এবং পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার ক্ষেত্রে এ বিশৃংখলা সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন আনে।
বৃহস্পতিবার ছিল যশোর শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ভর্তি পরীক্ষা। এদিন ক্লাস থ্রি থেকে ক্লাস এইট পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়। প্রায় ৪ হাজার ছাত্র ছাত্রী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়। গত ১ নভেম্বর থেকে ভর্তি ফরম বিক্রি শুরু হয়। বিক্রি শেষ হয় ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। অভিযোগ রয়েছে আসন সংখ্যার প্রায় ১০ ভাগ বেশি হারে স্কুল কর্তৃপক্ষ ভর্তি ফরম বিক্রি করে। যে কারণে ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষায় অংশ নিতে এবং পরীক্ষা শেষে বের হতে গিয়ে প্রচন্ড হয়রানি হতে হয়। একই সাথে হয়রানি হয় অভিভাবকরাও। অনেক শিক্ষার্থীকে অভিভাবক না পেয়ে কান্নাকাটি করতে দেখা যায়। পরে কোতয়ালি থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।
অভিভাবকদের অভিযোগে, স্কুল কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতার কারণে ভর্তি পরীক্ষায় ব্যাপক অনিয়ম ও বিশৃংখলার সৃষ্টি হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষায় একই সময়ে একটি পরীক্ষা শুরু ও আর একটি পরীক্ষা শেষ হওয়ায় এ বিশৃংখলার মূল কারণ। এছাড়া রয়েছে আসন বিন্যাসে নানা অনিয়ম। একই রোল নাম্বারে একাধিক আসন ফেলা হয়েছে। ফলে শিক্ষার্থীদের আসন খুঁজে পেতে হিমশিম খেতে হয়েছে। প্রচন্ড ভিড়ে অনেক শিক্ষার্থী আসন না পেয়ে পরীক্ষা দিতে পারেনি। তারা স্কুলের ভেতর দাাঁড়িয়ে দাড়িয়ে কাঁদতে থাকে। তাদের দিকে স্কুল কর্তৃপক্ষ কোন দৃষ্টি দেয়নি। শহরের আর এন রোডের মনিরুল ইসলাম নামে এক অভিভাবক জানান, প্রচন্ড ভিড়ের কারণে আমার ছেলেকে রাস্তার উপর ছেড়ে দিয়েছি। সে কাঁদতে কাঁদতে পরীক্ষা দিতে ঢোকে। অনেক যুদ্ধের পর স্কুলের ভেতরে ডোকার পরও সে তার ছিট খুজে পায়নি। স্কুল কর্তৃপক্ষও তাকে ছিট খুজে দেয়নি। যে যেখানে জায়গা পেয়েছে, সে সেখানে বসেই পরীক্ষা দিয়েছে। শহরের এইচ এম এম রোডের হেলালও একই অভিযোগ করেন। এ জাতীয় ব্যাপক অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার মধ্যে দিয়ে যশোর শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ভর্তি পরীক্ষা শেষ হয়। এ ব্যাপারে শিক্ষাবোর্ড স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ লেঃ কর্নেল মহিবুল আকবর মজুমদারের সাথে স্কুলে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এরপর ০১৫৫৮৫২৯৭৫২ নম্বর মোবাইল ফোনে কয়েক বার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি। বিধায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।#

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here