যশোর সদর ট্রাফিক বিভাগে গত এক বছরে ৭কোটি ৭০ লক্ষাধিক টাকা রাজস্ব আদায়

0
283

এম আর রকি : যশোর সদর ট্রাফিক পুলিশে কর্মকর্তা ও সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও যথাযথ দায়িত্ব পালনে গত এক বছরে সরকারের ৭ কোটি ৭০ লাখ ৮৯ হাজার ৪শ’ ৪৩ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। ক্রটিপূর্ন থাকায় মামলা দায়ের করা হয়েছে ২৮ হাজার ৯শ’২৭টি।
ট্রাফিক সূত্রে জানাগেছে,গত বছরের ১ জানুয়ারী থেকে ৩১ডিসেম্বর এক বছরে যশোর সদর ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত পুলিশ পরিদর্শক, সার্জেন্ট,টিএসআই,এটিএসআই ও কনস্টেবলদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও এবং যথাযথ দায়িত্ব পালনে যান বাহনের এই খাত থেকে সরকারের রাজস্ব আদায় হয়েছে ৭ কোটি ৭০ লাখ ৮৯ হাজার,৪৪৩ টাকা। এর মধ্যে যশোর পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে জরিমানা আদায় করা হয়েছে ৮০ লাখ ১৭শ’ হাজার ২শ’ টাকা। বিআরটি সদর সার্কেল যশোর দপ্তরের মাধ্যমে রাজস্ব আদায় হয়েছে ৬ কোটি ৫৬ লাখ ৫২ হাজার ৫৪৩ টাকা।
ট্রাফিক পুলিশে কর্মরত পুলিশ পরিদর্শক সাখাওয়াৎ হোসেন জানান,গত বছরে সরকারী কর্তৃক চলাচলে নিষিদ্ধ অবৈধ নছিমন,করিমন,ভটবটি জব্দ করা হয়েছে ১হাজার ১শ’ ১৭টি। এই খাত থেকে সরকারের রাজস্ব আদায় হয়েছে ২৫লাখ ৩৫ হাজার ৫শ’।যশোর জেলার বিভিন্ন স্থানে দূর্ঘটনায় পতিত যানবাহন উদ্ধার কাছে পুলিশের রেকার ব্যবহার করে সরকারের রাজস্ব আদায় হয় ২লাখ ১৪ হাজার টাকা। এ ছাড়াও যশোরের বিভিন্ন সড়কে ও বিভিন্ন স্পটে ভ্রাম্যমান আদালত দিয়ে অভিযান চালিয়ে জরিমানা আদায় করা হয়েছে ৬লাখ ৭০ হাজার ২শ’ টাকা। বর্তমানে যশোর সদর ট্রাফিক বিভাগে পুলিশ পরিদর্শক প্রশাসন পদে দায়িত্ব পালন করছেন,ফজলুল কবির,পুলিশ পরিদর্শক-২ সাখাওয়াত হোসেন,পুলিশ পরিদর্শক প্রাশান্ত কুমার,পুলিশ পরিদর্শক সোয়েবুর রহমান, আনন্দ কুমার,পুলিশ পরিদর্শক বুলবুল। সার্জেন্ট পদে দায়িত্ব পালন করছেন ৬জন। এছাড়া,টিএসআই পদে ৫জন,এটিএসআই পদে ২ জন ও কনস্টেবল হিসেবে ৫৪ জন দায়িত্ব পালন করছেন। সদর ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত পুলিশ পরিদর্শক-২ সাখাওয়াত হোসেন জানান,যশোরে সর্বক্ষনিক ভিআইপি ব্যক্তিদের আসা যাওয়ার পাশাপাশি বিমান বন্দর থাকায় সব সময় ব্যস্ততার মধ্যে দিন পার হয় ট্রাফিকে কর্মরত কর্মকর্তা ও সদস্যদের। প্রতিনিয়ত শহরের বিভিন্ন সড়কে যানজটের আশংকায় দুই শিফটে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে পুলিশ পরিদর্শক ও সার্জেন্ট ,টিএসআই,এটিএসআই ও কনস্টেবলদের। পুলিশ সুপার আনিসুর রহমানের নিদের্শে যশোর শহর যানজটমুক্ত শহরে পরিনত করতে সব সময় সোচ্চার থাকতে হয় ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত কর্মকর্তা ও সদস্যদের। ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত কর্মকর্তা ও সদস্যদের যথাযথ দায়িত্ব পালনে যান বাহন খাত হতে সরকারের মোটা অংকের রাজস্ব আদায় সরকারের রাজস্ব আদায়ের অন্য দপ্তরের চেয়ে কম নয়। ট্রাফিক পুলিশের যথাযথ দায়িত্ব পালনের কারণে যশোর শহর এখন যানজট মুক্ত শহরে পরিনত হয়েছে।তাছাড়া,মোটর সাইকেল ব্যবহারকারীদের অধিকাংশ আরোহীরা মোটর সাইকেলের রেজিষ্ট্রেশন,ইন্স্যুরেন্স,ড্রাইভিং লাইসেন্স,হেলমেট পরার অভ্যাস তৈরী হয়ে গেছে। যার ফলে যশোর অঞ্চলে আর আগের মতা চোরাই মোটর সাইকেল চলাচল করতে দেখা যায়না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here