যশোর সদর হসপাতালে দালালের হাত থেকে রেহায় পাচ্ছেনা মৃত ব্যক্তিরাও

0
160

নিজস্ব প্রতিবেদক : “খুব সকালে প্রায় ৫০ লাখ টাকার মাছ নিয়ে নসিমনে করে আসছিলাম বারোবাজারে। পথে যশোর-বেনাপোল সড়কের ধোপাখোলা এলাকায় বিপরীতমুখী একটি ট্রাক আমাদের নছিমনকে ধাক্কা দেয়। এতে তুফান আর আমি অচেতন হয়ে পড়ি। স্থানীয়রা উদ্ধার করে আমাদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় নছিমনচালক তুফান আলী (২৬) মারা যান। তুফান মরার সময় আমার পকেটে ছিলো ২০০ টাকা। তুফানের মৃত্যুর পরে ৩-৪ জন দালাল এসে মৃত তুফানের মরদেহ ইসিজি করে জোর করে আমার কাছে থাকা ২০০ টাকা নিয়ে নেয়। এদিকে আমাদের মাছ রাস্তায় পড়ে আছে। মাছ ফেরত পাবো কি না জানি না। তারপরে দুর্ঘটনার পর যে ওষুধ কিনতে হয়েছে সে টাকাও দেওয়া হয়নি। অথচ, তুফানের ইসিজি করে পকেটে থাকা সর্বশেষ ২০০ টাকা হাতিয়ে নিলো ওরা। এমনটাই বলছিলেন যশোর-বেনাপোল সড়কের ধোপাখোলা এলাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত তুফানের সঙ্গী সাতক্ষীরা ঘোনা গ্রামের আমির হোসেন।
খোজ নিয়ে জানা গেছে যশোরে জেনারেল হাসপাতালে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত ব্যক্তির ইসিজি করে টাকা নিয়েছেন মুসফিকুর রহমান এক দালাল। মুসফিকুর হাসপাতালের পাশে দেশ ক্লিনিক নামে একটি ক্লিনিকের কর্মচারী। আর ঘটনাটি আজ বৃহস্পতিবার সকাল নয়টার দিকে হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের।
এদিকে, হাসপাতালে অবস্থানরত রোগীর স্বজনরা জানান, হাসপাতালে রোগী প্রবেশ করলেই দালালরা ‘উপকারের নামে’ এগিয়ে আসে। এরপর নানাভাবে তারা বাড়তি টাকা হাতিয়ে নেয়।
এ ব্যাপারে হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডের ইন্টার্ন ডাক্তার মাহফুজা তামান্নাা বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ভর্তি হওয়া তুফান আলী মারা যান সকাল আটটা ৪৫ মিনিটে। এরপর কী হয়েছে তা তারা জানেন না। এ বিষয়ে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) আরিফ আহম্মেদ বলেন, ‘হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড, করোনারি কেয়ার ইউনিট ও প্যাথলজি বিভাগে তিনটি ইসিজি মেশিন আছে। তবে, সার্জারি ওয়ার্ডে ইসিজি নেই। ইসিজির নামে লাশ নিয়ে অর্থবাণিজ্যের ঘটনা আমার জানা নেই। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব।’
এদিকে, দেশ ক্লিনিকের কর্মচারী মুসফিকুর রহমানকে টাকা নেওয়ার বিষয় জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, ‘ভাই টাকা ফেরত দিয়ে দিচ্ছি। বিষয়টি আর বেশি দূর নিয়েন না।’
এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন বলেন, ‘জেনারেল হাসপাতাল পরিচালনার বিষয়ে আমাদের তেমন কিছু করার নেই। তবে অভিযুক্ত ক্লিনিকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’