যশোর সেনানিবাসে বিশেষ আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত

0
68

নিজস্ব প্রতিবেদক : সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশের স্বলোপান্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে রূপন্তর উদযাপনে যশোর সেনানিবাসে অনুষ্ঠিত হয়েছে এক বিশেষ আনন্দ শোভাযাত্রা।
উত্তরণ অর্জনকে স্মরণীয় ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সেনানিবাসের প্রধান প্রবেশদ্বার ‘স্বাধীনতা তোরণ’ ফটকেরর সামনে থেকে শনিবার সকাল সাতটায় বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন ও নেতৃত্ব দেন জিওসি, ৫৫ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার যশোর এরিয়ার মেজর জেনারেল নূরুল আনোয়ার এনডিসি, এইচডিএমসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি জি।
বাদ্যের তালে তালে সুসজ্জিত ও জাঁকজমকপূর্ণ শোভাযাত্রাটি সেনানিবাসের বিভিন্ন রাস্তা ও গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা প্রদক্ষিণ করে ওসমানী স্টেডিয়ামে এসে শেষ হয়।
এখানে সমাপনী বক্তব্যে এ আয়োজনের প্রধান অতিথি মেজর জেনারেল নূরুল আনোয়ার বলেন, মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে যশোর সেনানিবাস উৎসাহ, উদ্দিপনা এবং উৎসবমুখর পরিবেশে স্বাধীনতা দিবস নানা আয়োজনে পালন করেছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশের স্বলোপান্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ এক বিশেষ অর্থ বহন করে। স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরের মধ্যে বাঙালি জাতির এ উত্তরণ নিঃসন্দেহে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালির জন্মশতবার্ণিকীর আনন্দকে বহুগুনে বাড়িয়ে তুলেছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নের পথে এ যেন এক বড় অর্জন। তিনি তার বক্তব্যে বাংলাদেশের বিদ্যুৎখাতসহ আর্থ-সাসাজিক উন্নয়নে ৫০ বছরের অভূতপূর্ব অর্জনের বিভিন্ন দিকসমূহ সবাইকে অবহিত করেন।
উপস্থিত ছিলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হাফিজুর রহমান, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাহেদ কামাল, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মনোয়ার হোসেন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রাজী।