যশোর হাসপাতালে চিকিৎসা অবহেলায় রুগীর মৃত্যুর অভিযোগ

0
390

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে গৃহবধু রাবেয়া বেগম (২৫) নামে এক হৃদরোগী চিকিৎসা অবহেলায় তার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি বুধবার সকালে ঘটে৷ নিহত রাবেয়া কেশবপুর উপজেলার ভোগতি গ্রামের হযরত আলীর স্ত্রী ও মনিরামপুর উপজেলার শ্যামকুল গ্রামের শমসের সর্দারের মেয়ে৷

হাসপাতালে নিহত রাবেয়া বেগমের মাতা কহিনুর বেগম, পিতা শমসের সর্দার, ও দেবর ইউনুচ আলী অভিযোগ করে বলেন, মঙ্গলবার দিনগত গভির রাতে পেটে ও বুকের ব্যাথা নিয়ে রাবেয়াকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসি৷ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক হাবিবুর রহমান ভূইয়া মহিলা সার্জারী বিভাগে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন৷ এরপর সার্জারী বিভাগের চিকিৎসক অহেদুজ্জামান আজাদ বুধবার সকাল সাড়ে দশ টার দিকে ওই বিভাগের চিকিৎসকরা রাউন্ডে এসে পরীক্ষা নিরিক্ষা দেখে হৃদরোগী সমস্যা মনে করে হৃদরোগ বিভাগের চিকিৎসক দের কল দেয়। পরে হৃদরোগ বিভাগের চিকিৎসক মহিলা সার্জারী বিভাগে এসে রাবেয়া বেগমকে হার্ডের বিভাগ করোনারী কেয়ার ইউনিটে পাঠিয়ে দিতে বলেন৷ এরপর মহিলা সার্জারী বিভাগের কর্তব্যরত সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহানাজ খাতুন (তারা), আয়া জোতিকে দিয়ে করোনারী বিভাগে রোগিকে পাঠিয়ে দেন। আয়া রাবেয়াকে করোনারী বিভাগের দিকে নিতেই রাবেয়ার অবস্থা আরো খারাপ হয়। এসময় মহিলা মেডিসিন বিভাগে নিয়ে তাকে অক্সিজেন দিতে নেয়।পরে রাবেয়া বেগমের মৃত্যু হয় বলে স্বজনরা সাংবাদিকদের সামনে এঅভিযোগ তোলেন।

সার্জারী বিভাগের চিকিৎসক অহেদুজ্জামান আজাদ বলেন, বুধবার সকাল সাড়ে দশ টার দিকে ওই বিভাগের চিকিৎসকরা রাউন্ডে এসে পরীক্ষা নিরিক্ষা দেখে হৃদরোগী সমস্যা মনে করে হৃদরোগ বিভাগের চিকিৎসক দের কল দেয় বলে তিনি জানান।

জানতে চাইলে করোনারী বিভাগের চিকিৎসক মুসফিকুর রহমান বলেন রুগীটির হার্টের সমস্যা দেখে করোনারী বিভাগ তথা হৃদরোগী বিভাগে আনতে বলা হয়েছিলো। আনার আগেই রুগীটি মারা যায়৷ রুগীর চিকিৎসা পত্র মহিলা সার্জিরী বিভাগে পাঠিয়ে দিয়েছি ওখান থেকে মৃত্যু ঘোষনা করা হবে৷ মহিলা সার্জিরী বিভাগের চিকিৎসক পথিক বিশ্বাস বুধবার সকাল সাড়ে এগারো টায় রাবেয়া বেগমের মৃত্যু ঘোষনা করেন৷
পরে স্বজনেরা নিহতের মরদেহ নিয়ে হাসপাতাল ত্যাগকরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here