যশোর-১ আসনে আওয়ামীলীগ ও বিরোধী দলের প্রার্থী নিয়ে চলছে হিসাব নিকাশ

0
316

এম আর রকি : জাতীয় সংসদ একাদশ নির্বাচনে যশোর-১ শার্শা উপজেলা ও বেনাপোল এলাকায় হাওয়া বইতে শুরু করেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনটিতে একাদশ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে অনেকের নাম শোনা যাচ্ছে। আওয়ামীলীগের সংসদ শিল্পপতি শেখ আফিল উদ্দিনের পাশাপাশি এবার নির্বাচনে বেনাপোল পৌর সভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটনের নাম শোনা গেছে। আওয়ামীলীগের দু’জনের নাম শার্শা উপজেলা ও বেনাপোল থানা এলাকায় আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তরুন প্রার্থী হিসেবে আশরাফুল আলম লিটনের নাম এবার শীর্ষে রয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন।
দেশের সীমান্তবর্তী যশোর জেলার ভারত সীমান্ত এলাকায় যশোর-১ শার্শা ও বেনাপোল থানা নিয়ে গড়ে উঠেছে জাতীয় সংসদের আসনটি। শার্শা থানার অধীনে ৮টি ও বেনাপোল থানার অধীনে ৩টি মোট ১১টি ইউনিয়ন নিয়ে গড়ে উঠেছে যশোর-১ শার্শা বেনাপোল থানার আসনটি। শার্শা উপজেলার নির্বাচন অফিসার কামরুজ্জামান জানিয়েছেন,এই আসনে বর্তমান ২লাখ ৫৮ হাজার ৭৫ জন ভোটার রয়েছে। এই আসনটিতে স্বাধীনতার পর থেকে বিএনপির প্রার্থী আলী কদর সংসদ আসনটি দখল করে আসলেও গত কয়েকবার আওয়ামীলীগের প্রার্থী শিল্পপতি শেখ আফিল উদ্দিন নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে এই আসনটি আওয়ামীলীগের দখলে রেখেছে। বর্তমানে বিএনপি’র প্রার্থী আলী কদর সম্প্রতি মৃত্যু বরণ করায় এই আসনটি বিএনপি’র প্রার্থী এক প্রকার শুন্য অবস্থানে চলে যাওয়ায় উপজেলার বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক খায়রুজ্জামান মধুর নাম একাদশ জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার কথা উপজেলা ও বেনাপোল এলাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সর্বস্থানে শোনা গেছে। এই আসনে খায়রুজ্জামান মধু ছাড়াও বিএনপি’র বহিষ্কার প্রার্থী মফিকুল হাসান তৃপ্তির কথা শোনা গেছে। নির্বাচনে বহিষ্কার প্রত্যাহার করা হতে পারে বলে স্থানীয় এলাকায় গুঞ্জন রয়েছে। মফিকুল হাসান তৃপ্তি বিএনপি’র প্রার্থী হলে আওয়ামীলীগের জন্য এই আসনটি হারানোর সম্ভবনা বেশী বলে শোনা গেছে। এছাড়া, জামায়াত ইসলামী প্রার্থীর পক্ষে জেলা জামায়াতের আমীর মাওলানা আজিজুর রহমানের নাম শোনা গেছে। এই আসনটি বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের শরীক দল নিয়ে গঠিত ১৪ দলের অনেকে এই আসনটি চাইতে পারে। তার কারন আওয়ামীলীগের দু’জন প্রার্থী থাকায় শরীক দল এই সুযোগটি কাজে লাগাতে পারে। তবে শেখ আফিল উদ্দিন তার অবস্থান থেকে অটুট তবে নতুন মুখ হিসেবে বেনাপোল পৌর সভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটন এই আসনে প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী বলে তার পক্ষের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন। যশোর জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা শার্শা ও বেনাপোল পোর্ট থানা এলাকায় যশোর -১ আসনের একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে প্রতিদিন চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সর্বমহলে আলোচনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে। আগামী মাসের প্রথম দিকে পবিত্র ঈদুল আযহা। পবিত্র ঈদুল আযহার আনন্দর সাথে এবার মিলিত হচ্ছে একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আমেজ। এবার নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দু’জনের মধ্যে যিনি প্রার্থী হবেন তাদের প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী এই আসনে বিজয়ের ব্যাপারে আশাবাদী নিয়ে মাঠে কাজ করছেন। এই আসনটিতে বিএনপি’র এক চেটিয়ের পর আওয়ামীলীগের এক চেটিয়ে আসনে পরিনত হলেও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনে বর্তমান ক্ষমতাসীন না বিরোধী দলের প্রার্থী এমপি হবেন এমন প্রশ্নে বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন। এই আসনটিতে আওয়ামীলীগের প্রার্থী এগিয়ে থাকলেও বিরোধী দলের প্রার্থী দেওয়ার উপর নির্ভর করবে এই আসনে বিজয়ের প্রার্থীতা।#

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here