রাজাকারের বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় গ্রামবাসীর উপর সশস্ত্র মামলা, আহত অন্তত ১৫

0
264

নিজেস্ব প্রতিবেদক : একাত্তরের মানবতাবিরধী যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে হওয়া মামলায় শহীদ পরিবারর পক্ষে অবস্থান নেয়ায় যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলায় প্রেমচারা গ্রামের নিরীহ মানুষের উপর হামলা চালিয়েছে রাজাকার পক্ষীয়রা। এতে গুরুতর জক্ষম হয়েছে তিনজন যাদের মদ্ধে বন্দবিলা ইউনিয়নের প্রেমচারা গ্রামের মনসের মোল্লার ছেলে নিজাম মোল্লাকে গুরুতর অবস্থায় যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার মাথায় রামদা সহ ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে ।

এছাড়াও ঐ গ্রামের অন্তত ১৫জন কম বেশী আহত হয়েছে । প্রত্যক্ষদর্শী গ্রামবাসী জানিয়েছে, ২৯ এপ্রিল শনিবার রাত ৯টার দিকে বাঘারপাড়ার কুখ্যাত রাজাকার কমান্ডার প্রেমচারা গ্রামের আমজাদ মোল্লা ও তার প্রধান সহযোগী কুখ্যাত আদম পাচারকারী মহশীন বিশ্বাসের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী প্রেমচারার এহিয়ার দোকানে হামলা চালায়। এসময় তার হাতে থাকা রামদা, লোহার বড় লাঠি দিয়ে দোকানটি ভংচুর ও লুটপাট করে। তারা্ বলে আমজাদ মোল্লার বিরুদ্ধে কথা বলিস কেন? নিজাম মোল্লাসহ পিতা ইরাদত মোল্লা, জহুর খান পিতা ইরাদত মোল্লা শিপন মনসের মোল্লাসহ নিরীহ গ্রামবাসীকে পিটাতে ও কোপাতে থাকে। তাদের চিৎকারে গ্রামবাসী এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা আমজাদ মোল্লার কিছু হলে জ্বলবে আগুন ঘরে ঘরে শ্লোগান দিয়ে এলাকা ত্যাগ করে। যাওয়ার সময় তারা মৃত আকবর মন্ডলের ছেলে হুমায়ুন মন্ডলকে অপহন করে ইউ,পি মেম্বর মোল্লার বাড়িতে আটকে রেখে বেধরক মারপিট করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে হুমায়নকে উদ্ধার কারে। উল্লেখ্য অতি সম্প্রতি রাজাকার আমজাদ মোল্লার বিরুদ্ধে মাগুরা ও যশোরের আদালতে যুদ্ধাপরাধের মামলা হয়। যা ঢাকায় ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হায়েছ্।এতে যশোর থেকে বিভিন্ন মিডিয়ার একদল সাংবাদিক প্রেমচারা গ্রামে গেলে গ্রামবাসী রাজাকা্রের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেন। এতে ক্ষুদ্ধ হয় আমজাদ রাজাকার ও তার পক্ষীরা। যার জের হিসাবে এমামলার ঘটনা বলে গ্রামবাসী অভিয়োগ করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here