রূপদিয়া পল্লী বিদ্যুৎ অভিযোগ কেন্দ্রের সামনে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

0
2030

রূপদিয়া প্রতিনিধি : দশ মিনিট পরপর বিদ্যুতের ভেলকি বাজিতে অতিষ্ঠ্য জন-জীবন। নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবীতে শুক্রবার রাত সাড়ে-১০টার দিকে যশোর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-১ এর রূপদিয়াস্থ সাব-ষ্টেশনটি ও অভিযোগ কেন্দ্র এলাকার শত-শত নারী-পুরুষ ঝাটা হাতে নিরবিছিন্ন বিদ্যুতের দাবীতে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। এসময় সাব-ষ্টেশনের সংরক্ষিত স্থানে আড্ডা দেওয়া ওয়ারিং মিস্ত্রি সবুজ হোসেন নিজেকে পল্লী বিদ্যুতে ইলেকট্রিশিয়ান পরিচয় দানকারী এলাকাবাসীর উপর চড়াও হয়ে পরিস্থিতি ভিন্ন দিকে প্রবাহীত করার চেষ্টা করে। পরে ইলেকট্রিশিয়ান সবুজের হাম্বি-তাম্বিতে এলাকাবাসীর রোষানলে পড়েন। সংবাদ পেয়ে যশোর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির-১ এর সভাপতি ফারুক হোসেন ও রূপদিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অভিযোগ কেন্দ্রের ইনচার্জ শেখ হাদিয়ার রহমান ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে বিক্ষোভের কারন সম্পর্কে জেনে উত্তেজিত জনতাকে সারা দেশ ব্যাপী বিদ্যুতের সমস্যা সম্পর্কে বুঝাতে সক্ষম হয়ে পরিস্থিতির সামাল দেন। অপর দিকে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নেওয়ার চেষ্টা কারী কথিত ইলেকট্রিশিয়ান সবজু পল্লী বিদ্যুতের কেউ না বলে নিশ্চিত করেন ইনচার্জ হাদিয়ার রহমান। যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি ফারুক হোসেন বিদ্যুতের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে এলাকাবাসীর উদ্দেশ্যে সুন্দর কারন ব্যাখা করার পর প্রতিবাদ কারীরা স্থান ত্যাগ করেন। অভিযোগ রয়েছে যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর রূপদিয়া অভিযোগ কেন্দ্রটির বর্তমান সেবার মান একেবারে শুণ্যের কুঠায়। সাধারণ জনগন পল্লী বিদ্যুৎ এর কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ। তাছাড়া এই কর্মকর্তা কর্মচারীরা স্থানীয় বেশ কিছু কথিত ওয়ারিং মিস্ত্রি ও দালাল চক্রকে ব্যবহার করে তাদের মাধ্যমে বিভিন্ন অনৈতিক সুভিধা গ্রহন করে থাকে। যে কারনে সব সময় সাব-ষ্টেশনের সংরক্ষিত এলাকায় অবাধ বিচরণ করেন এলাকার চিহ্নিত দালাল চক্র। এসব চক্র সাধারন গ্রাহকদের সংযোগ প্রদান, দ্রুত মিটার প্রদান এমন কি বিদ্যুৎ বিল কম করার মত মিথ্যা আশ্বাস এবং ক্ষেত্র বিশেষ জায়গার মানুষদেরকে ভয়ভিতি দেওয়া সহ সংযোগ বিছিন্ন করার হুমকি প্রদর্শনের অভিযোগ রয়েছে এই চক্রের বিরুদ্ধে। এলাকাবাসীর অভিযোগ রূপদিয়া এলাকায় লোড শেডিং সম্প্রতি তিব্র থেকে তিব্রাকার ধারন করেছে। সূত্র জানায় রূপদিয়ার এই অভিযোগ কেন্দ্রের কর্মচারীরা এলাকার আলী সিট ফার্ম সহ বিভিন্ন কারখানা থেকে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে সেই লাইনগুলো নিরাবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ রেখে আবাসিক এলাকার লাইন রাত-দিন ১২-১৪ ঘন্টা করে সংযোগ বন্ধ রেখে দেয়। এতে করে জন-জীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছে। যে কারনে রূপদিয়া সাব-ষ্টেশনের সামনে শত-শত নারী-পুরুষ এই গণ বিক্ষোভ করা হয়েছে। অপর দিকে একটি দালাল চক্র বিষয়টি নিয়ে পানি ঘোলার চেষ্টা করেন এবং উস্কানী দিয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির-১ এর সভাপতি ও ইনর্চাজ কে এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে মামলা করার পরামর্শ দেন। কিন্তু বিচক্ষণ কর্মকতাদের বুদ্ধিমত্যা ও সুন্দর উপস্থাপনার মাধ্যমে পরিস্থিতি সামাল দেন। এ ব্যাপারে যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির-১ এর জেনারেল ম্যানেজার জানান এ পরিস্থিতি নিয়ে আরো প্রচার-প্রচারনার দরকার রয়েছে এবং সাব-ষ্টেশনে সংরক্ষিত এলাকায় বহিরাগতদের প্রবেশ ও আড্ডার ঘটনা জন্য দু:খ প্রকাশ করেন এবং দ্রুত এ লোড শেডিং সমাধানের চেষ্টা করবেন বলে সাংবাদিকদের জানান। স্থানীয়রা আরও জানান অক্লান্ত পরিশ্রম করে জনাব ফারুক হোসেন অত্র ইউনিয়নে বিদ্যুৎতের ঘাটতি পূরণ করার চেষ্ঠা করলেও সেটা সফল হতে বিগ্ন ঘটায় যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির-১ এর কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। তাই এ থেকে পরিত্রান পেতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের সু- দৃষ্টি কামনা করেন এলাবাসী ও সুধী সমাজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here