রূপনগরে এসআই ও তার শ্যালিকার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

0
275

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর রূপনগরে পুলিশের একজন উপ পরির্দশক (এসআই) ও তার শ্যালিকার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই এস আইয়ের নাম আব্দুস সাত্তার। তিনি বাড্ডা থানায় কর্মরত ছিলেন। তার শ্যালিকার নাম সোমা আক্তার।

শনিবার রাত আটটার দিকে পুলিশ রূপনগরের একটি বাসা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করেছে। পুলিশের একটি সূত্র দাবি করছে শ্যালিকাকে গুলি করে হত্যার পর এসআই নিজেও আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারনা করা হচ্ছে। তবে তাদের মৃত্যুর কারণ সর্ম্পকে পুলিশ নিশ্চিত নয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের মিরপুর অঞ্চলের উপ কমিশনার মাসুদ আহমেদ জানান, রূপ নগরের ২২ নম্বর রোডের ৩২ নম্বর বাড়ির ৬ষ্ঠ তলায় এসআই আব্দুস সাত্তার ভাড়া থাকেন। সন্ধ্যায় পুলিশ ওই বাসার মধ্যে থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুজনের লাশ উদ্ধার করে। তাদের দুজনের মাথায় গুলিবিদ্ধ হওয়ার চিহ্ন রয়েছে। পরে তাদের লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়।

রূপনগর থানার ওসি শহিদ আলম জানান, প্রতিবেশীরা ওই বাসা থেকে দুটি গুলির শব্দ পেয়ে থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে সন্ধ্যা সাতটার দিকে পুলিশ ওই বাসায় গিয়ে দুজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। তাদের দুজনই অচেতন অবস্থায় ছিলেন। বেচে আছে কিনা সেটা নিশ্চিত হতে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিত্সকরা তাদের দুজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে এসআই আব্দুস সাত্তারের পরিবারে পারিবারিক কলহ ছিল। ধারণা করা হচ্ছে এসআই সাত্তার নিজের সরকারি অস্ত্র দিয়ে শ্যালিকাকে গুলি করে হত্যা করেছেন। এরপর তিনি নিজেই আত্মহত্যা করেছেন। ঢাকা মেডিক্যালের আবাসিক সার্জন ডা. হাবিবুল হাসান বলেন, দুজনকে পুলিশ রাত সাড়ে আটটায় রক্তাক্ত অবস্থায় নিয়ে আসলে চিকিত্সকরা পরীক্ষা করে তাদের মৃত ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তারা মারা গেছেন।

পুলিশ সূত্র আরো জানায়, আব্দুস সাত্তার শাহআলীতে এএসআই হিসেবে ছিলেন। পরে পদোন্নতি পেয়ে এসআই হিসেবে সাত্তার রূপনগর থানায় যোগ দেন। এরপর গত ২৫ জুন (ঈদের আগে) বাড্ডা থানায় বদলি হয়ে যান। সাত্তার ছুটিতে ছিলেন বলে জানান বাড্ডা থানার ওসি মো. আবদুল জলিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here