লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ইউএনও প্রকৌশলীসহ ৬ জনের নামে দুদকের মামলা, প্রকৌশলীসহ ঠিকাদার গ্রেফতার

0
1460

নড়াইল প্রতিনিধি
বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অর্ধ কোটি টাকার বেশি আত্মসাতের অভিযোগে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ ফয়জুল আমির লিটু, তৎকালীন ইউএনও সেলিম রেজা, এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী ওসমান গণিসহ ছয়জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক আলী আকবর বাদী হয়ে আজ শুক্রবার (৭ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ছয়জনের নামে লোহাগড়া থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় উপজেলা প্রকৌশলী ওসমান গণি ও ঠিকাদার পরিমল কুমার ঘোষকে গ্রেফতার করেছে দুদক।
মামলার বিবরণে জানা যায়, এলজিইডির অধীনে অনগ্রসর উপজেলার জন্য বিশেষ থোক বরাদ্দ উপখাত থেকে ২০১৬ সালের ৩ জানুয়ারি নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের জন্য এক কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এর মধ্যে চাচই ওয়াপদা থেকে কালনা সড়ক মেরামতে ৭৮ লাখ ৮৬ হাজার ৫৬৯ টাকা টাকা উপবরাদ্দ দেয়া হয়। এ বরাদ্দের আশিংক কাজ না করে ওই বছরের (২০১৬) ২৬ জুন আসামিরা বিল উত্তোলন করে নেয়। এখানে তিন লাখ ৩৬ হাজার ৮০৪ টাকা  আত্মসাত করেন। এছাড়া চাচই সিডি থেকে কালনা সড়ক উন্নয়নে ২৪ লাখ ৬৩ হাজার ৪২৯ টাকা উপবরাদ্দ করা হয়। এখানেও আশিংক কাজ না করে বিল উত্তোলনের মাধ্যমে দুই লাখ ৫৫ হাজার ১৮৪ টাকা আত্মসাত করেন আসামিরা।
এছাড়া, ২০১৬ সালের ৩ মে লোহাগড়া উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের জন্য ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়। এর মধ্যে চাচই সিডি এলাকা থেকে কালনা সড়ক উন্নয়নে ৩৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা উপ-বরাদ্দ করা হয়। এ বরাদ্দকৃত টাকা আশিংক কাজ না করে ওই বছরের ২৬ জুন আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে পাঁচ লাখ আট হাজার ৪৮০ টাকা আত্মসাত করেন। তিনটি উন্নয়ন কাজে ১১ লাখ ৪৬৮ টাকা আত্মসাত করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।
এদিকে, লোহাগড়া উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসবাবপত্রসহ ২৪টি উন্নয়ন প্রকল্পের ৪৩ লাখ আত্মসাতের অভিযোগে লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ ফয়জুল আমির লিটু, তৎকালীন ইউএনও সেলিম রেজা এবং লোহাগড়া উপজেলা প্রকৌশলী ওসমান গণির নামে লোহাগড়া থানায় আরো একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
লোহাগড়া থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম মামলা ও গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here