শনিবার সকাল থেকে যশোরে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু ॥ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের প্রস্তুতি সম্পন্ন

0
388

এম আর রকি যশোর: আগামীকাল ২৩ ডিসেম্বর শনিবার সারা দেশের ন্যায় যশোরে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড) শুরু হবে। মঙ্গলবার ১৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকালে যশোর রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি মিলনায়তনে সিভিল সার্জন অফিস যশোরের আয়োজনে অনুষ্ঠিতব্য ওরিয়েন্টশন কর্মশালায় ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাক্তার হারুন-অর-রশীদ এ কথা জানান। এবারের ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন (২য় রাউন্ড) যশোর জেলায় ৩ লাখ ৬ হাজার ২শ’ ৮৯ টি শিশুকে লাল ও নীল রংয়ের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন পালনে ইতিপূর্বে জেলা সিভিল সার্জন দপ্তর সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন।
যশোর জেলার নবাগত সিভিল সার্জন ডাক্তার দিলীপ কুমার রায়ের নির্দেশে জেলার যশোর পৌরসভা ও ৮ উপজেলা এলাকায় ২ হাজার ৪শ’ ৮টি টিকাদান কেন্দ্র স্থাপনের টার্গেট চুড়ান্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ভ্রাম্যমান টিকাদান কেন্দ্রের সংখ্যা ২২টি। জেলায় ৬-১১ মাস বয়সী শিশুর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৩৬ হাজার ২শ’ ৬টি এবং ১২-৫৯ বাস বয়সী শিশুর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২লাখ ৭০ হাজার ৮৩ জন।এই কর্মসূচী বাস্তবায়নে ৪ হাজার ৮শ’ ১৬জন স্বেচ্ছা সেবক ও স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্যাণ কর্মী ৫শ’ ৯২জনকে চুড়ান্ত করা হয়েছে। তারা সকাল থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত জেলার সকল শিশুকে উচ্চতা ক্ষমতা সম্পন্ন ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। সিভিল সার্জন দপ্তর থেকে আরো জানানো হয়েছে,ভিটামিন এ ক্যাপসুল এর নীট চাহিদা রাখা হয়েছে ৩লাখ ৪১ হাজার ৬শ’ ৬৬টি। এর মধ্যে ভিটামিন এ ক্যাপসুল (২লক্ষ আইইউ ক্ষমতা সম্পন্ন এর লাল রংয়ের) নীট চাহিদা রাখা হয়েছে ৩লাখ ২ হাজার ৫শ’ ৩৩টি ও নীল রংয়ের ভিটামিন এ ক্যাপসুল ( ১লক্ষ আইইউ উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ) নীট চাহিদা রাখা হয়েছে ৩৯ হাজার ১শ’ ১১টি।
সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাগেছে, যশোর পৌরসভা ও ৯১টি ইউনিয়নে ২শ’৭৬টি ওয়ার্ডে স্বেচ্ছা সেবক ও স্বাস্থ্য ও পরিবার পরি কল্যাণ কর্মী দায়িত্ব পালন করবেন। ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন বাস্তবায়নে যশোর সদরের ১৫টি ইউনিয়নের ৪৫টি ওয়ার্ডে ৩৬৪টি অস্থায়ী,১৫টি অতিরিক্ত ্র ও ৩টি ভ্রাম্যমানসহ ৩৮২ টিকাদান কেন্দ্র,মণিরামপুর উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের ৫১টি ওয়ার্ডের ১টি স্থায়ী,৪০৮টি অস্থায়ী,১৭টি অতিরিক্ত,২টি ভ্রাম্যমানসহ ৪২৮টি টিকাদান কেন্দ্র কেশবপুর উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নের ২৭টি ওয়ার্ডের ১টি স্থায়ী,২১৬টি অস্থায়ী,৯টি অতিরিক্ত ও ৩টি ভ্রাম্যমানসহ ২২৯টি কেন্দ্র,অভয়নগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের ২৪টি ওয়ার্ডের ১টি স্থায়ী,১৯২টি অস্থায়ী,৮টি অতিরিক্ত,২টি ভ্রাম্যমানসহ ২০৩টি কেন্দ্র,বাঘারপাড়া উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ২৭টি ওয়ার্ডের ২টি স্থায়ী, ২১৬ অস্থায়ী,৯টি অতিরিক্ত ও ১টি ভ্রাম্যমানসহ ২২৮টি কেন্দ্র,চৌগাছা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ৩৩টি ওয়ার্ডের ১টি স্থায়ী, ২৬৪ অস্থায়ী, ১১টি অতিরিক্ত ও ৩টি ভ্রাম্যমানসহ ২৭৯ টি কেন্দ্র,ঝিকরগাছা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ৩৩টি ওয়ার্ডের ২টি স্থায়ী,২৬৪টি অস্থায়ী,১১টি অতিরিক্ত ও ১টি ভ্রাম্যমানসহ ২৭৮টি টিকাদান কেন্দ্র,শার্শা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ৩৩টি ওয়ার্ডের ৩টি স্থায়ী,২৬৪টি অস্থায়ী,১১টি অতিরিক্ত ও ৬টি ভ্রাম্যমানসহ ২৮৪টি টিকাদান কেন্দ্র ও যশোর পৌরসভার ১টি ইউনিয়নের ৩টি ওয়ার্ডে ১৩টি স্থায়ী,৭২টি অস্থায়ী,১১টি অতিরিক্ত,১টি ভ্রাম্যমানসহ ৯৭টি টিকাদান কেন্দ্র খোলা হবে। আগামীকাল যশোর শহরের চাঁচড়া ডালমিল সংলগ্ন পিকেএস চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানে জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন শিশুকে ভিটামিন এক প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর মধ্যে দিয়ে উদ্বোধন করা হবে বলে ডেপুটি সিভিল সার্জন জানিয়েছেন। যশোর জেলায় রাত কানা শিশু শুন্য কোটায় রাখতে এ কর্মসূচী পালন হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here