শার্শার পল্লীতে ভূমী দশ্যুদের রোশানলে পড়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে আমেরিকান প্রবাসি দম্পত্বি

0
91

বিশেষ প্রতিনিধিঃ শার্শার পল্লীতে ভূমী দশ্যুদের রোশানলে পড়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে আমেরিকান প্রবাসি দম্পত্বি। থানায় অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার না পেয়ে ভয়ে বাড়ি হতে বের হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার দক্ষিন বুরুজ বাগান গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে গত ৩০ জানুয়ারী ২০২২ তারিখে। উক্ত গ্রামের আমেরিকান প্রবাসি ইসমোতারা খাতুনের অভিযোগে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত তারই ভাসুর আব্দুল জলিলের সাথে তাদের জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। ইতিমধ্যে আব্দুল জলিল তার পিতা ওমর আলীর কাছ থেকে পৈতৃক সম্পত্তি হতে বেশিরভাগ জমি গোপেনে লিখে নেয়। পিতার মৃত্যুর পর সে গুলো প্রকাশ পেলে দুই ভাইয়ের মাঝে বিরোধ দেখা দেয়।

ইতি মধ্যে ছোট ভাই আব্দুল জালালের পুত্র কামাল হোসেন ডিভি লটারির মাধ্যমে আমেরিকায় বসবাস শুরু হরে। বিগত কিছুদিন পূর্বে আব্দুল জলিল ভাইপো কামাল হোসেনের কাছে ১৬ শতাংশ জমি বিক্রয় করলেও তা দখল দিচ্ছিল না। পরে বিষয়টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কতৃক মিমাংশীত হয়। এতে করে আব্দুল জলিল আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। ছুটি শেষে আমেরিকান প্রবাসি কামাল হোসেন আমেরিকায় কর্মস্থলে যোগ দিলে গত ৩০ জানুয়ারী সকাল ১০ টায় আব্দুল জলিল নিজ সন্তান আবুল কালাম আজাদ ও সন্ত্রাসী বজলে সহ ৪ জন কামাল হোসেনের আমেরিকান প্রবাসি মা ইসমোতারা ও তার বোন তানিয়া খাতুনের উপর হামলা চালায়। এবং এলাকা ছেড়ে চলে যাবার জন্য হুমকি প্রদান করে। এ সময় ইসমোতারার স্বামী আমেরিকান প্রবাসি প্যারালাইসিসে আক্রান্ত জালাল হোসেন পাশেই হুইল চেয়ারে বসেছিল। বজলে বাহিনীর হামলায় আতঙ্কিত হয়ে বর্তমানে অথর্ব হয়ে গেছে। তাকে ঘর হতে কেউ বাইরে বার করতে পারছে না।

এ ব্যাপারে ঘটনার দিনই সন্ধ্যায় তানিয়া খাতুন বাদি হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে শার্শা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, আমেরিকান প্রবাসি কামাল হোসেনের পরিবার ভূমী দশ্যুদের পৌষ্য সন্ত্রাসীদের কতৃক হামলার শিকার হলেও পুলিশের ভূমীকা প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছে। সন্ত্রাসী জামায়াত নেতা বজলে রহমান হত্যার হুমকি অব‍্যাহত রেখেছে।

এ ব্যাপারে শার্শা থানা পুলিশের ইনচার্য মামুন খাঁনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি এসআই তারিকুল ইসলামের কাছে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। খুব শীগ্রই আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।