শার্শায় ভ্রাম্যমান আদালতের সুফল পেতে শুরু করেছে সাধারন মানুষ

0
336

আরিফুজ্জামান আরিফ বাগআঁচড়া:যশোরের শার্শায় ভ্রাম্যমান আদালতের সুফল পেতে শুরু করেছে সাধারন মানুষ। স্থানীয় প্রশাসনের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সাধারন মানুষ সাময়িকভাবে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্থ হলেও অপরাধীরা আইনের প্রতি সচেতন হচ্ছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা বাল্য বিবাহ জিরো টলারেন্স ঘোষনা করায় শার্শা উপজেলায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় বাল্যবিবাহ প্রায় শূন্যের কোঠায় দাড়িয়েছে । উপজেলা প্রশাসনের তৎপরতার ফলে কোন অভিভাবকই এখন জেনে শুনে অপরিনত বয়সের ছেলে বা মেয়েকে বাল্যবিবাহ দিচ্ছেন না। একই সাথে মাদকসেবী ও মাদক বিক্রেতারা ভ্রাম্যমান আদালতের বিষয়ে তটস্থ থাকায় মাদক সেবন ও মাদক বিক্রয় অনেকাংশে কমেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম শার্শায় যোগদান করার পর থেকে চলতি মাসের গত ৬ মার্চ পর্যন্ত ১ শত ৬৯ টি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেছেন। মাদক সেবন, বাল্য বিবাহ, মাদক বিক্রয়, ভোক্তা অধিকার, মটরযান, পাটজাত দ্রব্য আইন, মাটি ও বালূ উত্তলনের অপরাধে ৯৮ জন অপরাধীকে বিভিন্ন মেয়াদে বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন। ৩ শত ৭১ জনের নিকট থেকে জরিমানা আদায় করেছেন ৯ লক্ষ ৫ হাজার ৭ শত ৫০ টাকা। এর মধ্যে ২০১৫ সালের জুলাই মাসে মাদক দ্রব্য আইনে ০১ টি, আগষ্ট মাসে ১০ টি, সেপ্টেম্বর মাসে ৭ টি, অক্টোবর মাসে ১১ টি, নভেম্বর মাসে ৭ টি ডিসেম্বর মাসে ১০ টি, জানুয়ারী/১৬ মাসে ৫ টি, ফেব্রুয়ারী মাসে ৭ টি, মার্চ মাসে ১২ টি, এপ্রিল মাসে ১৪ টি, মে মাসে ১৪ টি, জুন মাসে ৩ টি, জুলাই মাসে ১০টি, আগষ্ট মাসে ১৩ টি, সেপ্টেম্বর মাসে ০৫ টি, অক্টোবর মাসে ০৪ টি, নভেম্বর মাসে ৬ টি, ডিসেম্বর মাসে ৬ টি। চলতি ২০১৭ বছরের জানুয়ারী-মাসে ০৭ টি, ফেব্রুয়ারী মাসে ১৩ টি ও মার্চ ০৪ টি সহ মোট ১ শত ৬৯ টি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়েছে। বিভিন্ন অপরাধের বিভিন্ন মেয়াদে জেল জরিমানা, অর্থ দন্ডের ফলে আইনের প্রতি সাধারন মানুষ হচ্ছে শ্রদ্ধাশীল।বৃদ্ধি পেয়েছে সচেতনতা
এ ব্যাপারে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক থানা কমান্ডার মনিরুজ্জামান মন্টু ভ্রাম্যমান আদালত সংক্রান্ত  এক প্রশ্নের জবাবে  বলেন, অসংখ্য মা বোনের ইজ্জত ও লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশকে পরাধিনতার শৃংখল থেকে মুক্ত করে স্বাধীন করে ছিলাম এ দেশ। সে দিন থেকে প্রতিষ্ঠিত হয় স্বাধীন সার্বভৌমত্ব একটি রাষ্ট্র কিন্তু এ দেশের এক শ্রেনীর অসাধু মানুষ ও ব্যবসায়ীরা সাধারন মানুষকে আজও ঠকাচ্ছে। আইন সম্পর্কে সচেতন নয় এরা। তবে শার্শায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হওয়ায় কিছুটা হলেও সাধারন মানুষ আইন সম্পর্কে সচেতন হয়েছে এবং  এর সুফল পেতে শুরু করেছে জনগন। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন এ প্রতিনিধির এক প্রশ্নের জবাবে বলেন প্রশাসন ইচ্ছা করলে সমাজের পেক্ষাপট পরিবর্তন করে দিতে পারে। তবে আইন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে মিটিং সেমিনার প্রয়োজন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম এর নিকট ভ্রাম্যমান আদালত সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন,আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় সকলের সহযোগীতা একান্ত প্রয়োজন। আইন সকল শ্রেনীর মানুষের জন্য সমান। আইন সম্পর্কে সবাই সচেতন হলে সামাজিক ভাবে সকলেই এর সুফল ভোগ করতে পারবে।এজন্য  সবার আগে প্র য়োজন সচেতনতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here