শেখ হাসিনাকে বরন করতে প্রস্তুুত যশোর

0
529

প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক জনসভায় যশোরের মানুষ তাদের প্রত্যাশা করছে অনেক

এম আর রকি : যশোরের বিভিন্ন পেশার মানুষ আশায় বুক বেঁধে রয়েছে। দেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোরে জনসভায় ভাষনের সাথে যশোরে নতুন কোন উন্নয়নের অবকাঠামোর ঘোষনা দেবেন। আর মাত্র তিনদিন পর অর্থাৎ ৩১ ডিসেম্বর রবিবার সেই প্রত্যাশার দিন। যশোরের মানুষ তাদের প্রত্যাশার দিনে দেশের প্রধান মন্ত্রীর কাছ থেকে তেমন কিছু আশা করে বসে রয়েছে। যশোরের মানুষের নানা স্বপ্ন বাস্তবায়নে যশোরে জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দসহ যশোরের ৫ আসনের এমপিদের সমন্বয় নিয়ে আজ বুধবার ২৭ ডিসেম্বর যশোর জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে এক সভা আহবান করা হয়েছে। উক্ত সভা থেকে যশোরের মানুষের প্রত্যাশা বাস্তবায়নে প্রধান মন্ত্রীর কাছে জনগনের বাস্তবায়নের আবেদন জানানো নিয়ে একটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে এই সভা থেকে। সূত্রগুলো বলেছে, আওয়ামীলীগের সভাপতি বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিপূর্বে যশোরের ঈদগাহ ময়দানে জনসভায় ঘোষনা দিয়েছিলেন আগামীতে নৌকা প্রতীক প্রার্থীকে যশোরের মানুষ নির্বাচিত করলে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলে যশোর জেলা পৌরসভা থেকে সিটি কর্পোরেশন উন্নিত করণ করা হবে। যশোরের মানুষ সেই সময় শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন চায়। যশোরের বিভিন্ন পেশার মানুষ জানান, বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা যশোরের শামস্ -উল- ষ্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামীলীগের আয়োজিত জনসভায় যশোর উন্নয়নে দৃষ্টান্ত হিসেবে যশোরকে সিটি কর্পোরেশন নয় যশোরকে বিভাগ ঘোষনা করতে পারেন। যশোরকে উন্নয়নের দিকে ধাবিত করতে ইতিপূর্বে অত্যাধুনিক তথ্য ও প্রযুক্তির আইটি পার্কসহ নতুন ভবন নির্মাণে অগ্রণীভূমিকা রেখেছেন। এখন যশোরকে বিভাগ ঘোষনার দাবিতে দীর্ঘদিন যাবত যশোর সমিতির ব্যানারে আন্দোলন কর্মসূচী পালন হয়ে আসছে। যশোর বিভাগ ঘোষনার যুক্তি উল্লেখ করে ইতিপূর্বে যশোর সমিতি’র নেতৃবৃন্দ প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে স্মারণ লিপি পেশ করেন।যশোর বিভাগ উন্নয়ন সমিতির নেতৃবৃন্দ যশোর বিভাগ ঘোষনার জন্য যে অবকাঠামো থাকার দরকার তা যশোরের পরিধিতে রয়েছে। আজ বুধবার বেলা ১১ টায় যশোর বিভাগ উন্নয়ন কমিটির আয়োজনে প্রেসক্লাব যশোর মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। অপর একটি সূত্রে জানাগেছে,যশোরে পূর্নাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন উন্নয়ন দাবি করে একটি প্রস্তাব দেওয়ার কথা ভাবছে জেলা আওয়ামীলীগসহ ৫ এমপি। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে চাইলে খালি হাতে ফিরবে না যশোরের এমপি ও জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ এমন আশা পোষন করেছে কয়েকজন নেতৃবৃন্দ। যশোর উন্নয়নে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা যে ঘোষনা দিবেন সেটি যশোর বাসীর জন্য অনাকাঙ্খিত একটি উপহার হবে বলে মন্তব্য করেছেন সূত্রগুলো। শেখ হাসিনার জনসভাকে ঘিরে যশোর শাম্স-উল-হুদা ষ্টেডিয়ামের আশপাশ এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। যশোর শহরকে নিরাপত্তা চাদরে মোড়া হবে আগামী রোববার ৩১ ডিসেম্বর। ষ্টেডিয়ামে ভাষন দেওয়ার মঞ্চর চারিপাশে চলতি মাসের শুরু থেকে বিভিন্ন গোয়েন্দা শাখা অবস্থান নিয়েছেন। গোটা যশোরের বিভিন্ন সড়কে যশোরের আওয়ামীলীগ,যুবলীগ,ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছবি সম্বলিত ব্যানার টাঙ্গানো হয়েছে। জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিন চাকলাদার,এমপি কাজী নাবিল আহমেদ ও যশোর পৌর সভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টুসহ অনেক নেতাদের ব্যানার টাঙ্গানো হয়েছে। তাতে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার যশোরের উন্নয়নের ধারাবাহিক ছবি রয়েছে ব্যানারে। ইতিমধ্যে যশোরের অলিগলিতে বিভিন্ন গোয়েন্দা শাখা ছাড়াও জেলা পুলিশের অর্ধশতাধিক ইউনিট অবস্থান নিয়েছেন। যাতে করে কোন অপরাধ মূলক ঘটনা সৃষ্টি হতে না পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here