শেষ সময়ে ঝিনাইদহ ও কালীগঞ্জে জমে উঠেছে ঈদের বাজার

0
306
অনলাইন ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ শহর ও ঝিনাইদহ শহরের বিভিন্ন মাকেটে তৈরি পোশাকের প্রধান প্রধান দোকান রয়েছে। এ ছাড়া বিচ্ছিন্ন ভাবে সড়কের পাশে রয়েছে বেশ কিছু দোকান।

সেখানে মধ্য আয়ের মানুষদের আনাগোনা বেশি। ঝিনাইদহ শহরের কেসি কলেজ সড়কের দু,পাশে ও কালীগঞ্জের মধুগঞ্জ বাজারের রাস্তার দু,পাশের দোকান গুলোতে নিম্ন আয়ের ক্রেতাদের ভিড় বেশি। শহরের জুতা-স্যান্ডেলের দোকান গুলোতেও ভিড় জমে ক্রেতাদের।রিমঝিম গার্মেন্সের মালিক সেন্টু মিয়া বলেন, বিক্রি খুবই ভালো। ১০ রোজার পর থেকে মূলত বিক্রি বেড়েছে। এখন দম ফেলার সময় নেই। তৈরি পোশাকের প্রায় সবই ভারতীয়।

কয়েকজন দোকানি বলেন, এবার নতুন নামের কয়েকটি শাড়ি, পোশাক ও স্যান্ডেল ঈদ বাজারে এসেছে। বিক্রিও হচ্ছে বেশ। এর মধ্যে মেয়েদের বাহুবলী-২ বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার থেকে ৪ হাজার টাকায়। পাঞ্জু দুই থেকে আড়াই হাজার টাকায়। লেহেঙ্গা দুই থেকে ৩ হাজার টাকায়। ছেলেদের প্যান্ট বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার ৭,শ থেকে টাকায়।

ক্রেতেরা বলছেন গত বছরের চেয়ে এবার কাপড় ও স্যান্ডেলের দাম অনেকটা বেশি । যাঁরা একটু বেশি দাম দিয়ে ভালো শাড়ি কিনতে চাচ্ছেন, তাঁদের জন্য এবার এসেছে গুজরাট সিল্ক ৪ থেকে ৬ হাজার টাকা, সাউথ কাতান ২ হাজার থেকে ৮ হাজার টাকা, টাঙ্গাইল সিল্ক কাতান ৬হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা। এ ছাড়া রয়েছে বাহারি নামের নতুন শাড়ি।

ছোট-বড় সবার জন্যই এবার নানা রঙের ও নামের স্যান্ডেল বাজারে এসেছে। ক্রেতাদের নজরও সে গুলোর দিকে। যেমন কালীগঞ্জ শহরে ও ঝিনাইদহ শহরের বিভিন্ন টেইলার্সের দোকানে অর্ডার নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে দোকান মালিকরা। দোকানের কারিগররা দিনরাত কাজ করছে। কালীগঞ্জ থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, ঈদে কেনাকাটা করতে নিরাপত্তাসহ পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ ব্যবস্থা জোরালো করা হয়েছে । ঝিনাইদহ ও কালীগঞ্জ শহরে দিন রাত সর্ব সময় পুলিশ টহল দিচ্ছে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here