শ্যামনগরে সুশীলনের উদ্দ্যোগে ‘স্বপ্ন’কর্মী ৪শ ৩৮টি পরিবারের মাঝে ভোগ্যপণ্য বিতরণ

0
366

ইকবাল হোসেন কালিগঞ্জ সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:‘স্বপ্ন’প্রকল্প নারী কর্মীদের মধ্যে ভোগ্যপণ্য সহায়তা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। শুক্রবার(১৫মে) শ্যামনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় ইউএনডিপি ও ইউনাইটেড গ্রুপের অর্থায়নে বে- সরকারী উন্নয়ন সংস্থা সুশীলন সংস্থার বাস্তবায়নে কোভিড-১৯ মহামারীতে ভোগ্যপণ্য সহায়তা-২০২০ প্রদান করা হয়েছে। সাতক্ষীরার জেলার কালিগঞ্জের ১২ ইউনিয়ন ও শ্যামনগরের ১২ টি ইউনিয়নে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত হতদরিদ্র, দু:স্থ ও অসহায় নারী প্রধান ৮শ ৭০টি পরিবারের মাঝে ভোগ্যপণ্য সামগ্রী সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় ইউনিয়ন গুলোতে বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত জরুরী স্বাস্থ্য নীতিমালা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সকলের সহযোগিতায় ভোগ্যপণ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।শ্যামনগর উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নে ৪ শ৩৮ টি পরিবারের মাঝে ভোগ্যপণ্য সহায়তা উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল হক দোলন। তিনি ইশ্বরীপুর ইউনিয়ন পরিষদে ৩৬ জনকে ভোগ্যপণ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের সমাপনীতে বক্তব্য প্রদান করেন। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইশ্বরীপুর ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডঃ শোকর আলী, সুশীলনের উপ পরিচালক মোস্তফা আক্তারুজ্জামান পল্টু, কালিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুকুমার দাশ বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক এম হাফিজুর রহমান শিমুল, শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাব সহ সভাপতি মোস্তফা কামাল, সুশীলনের প্রজেক্ট অফিসার শেখ ফিরোজ উদ্দীন প্রমূখ। উৎপাদনশীল ও সম্ভাবনাময় কর্মের সুযোগ গ্রহনে নারীর সামর্থ্য উন্নয়ন (স্বপ্ন) প্রকল্পের মাধ্যমে সুশীলন সংস্থার মাঠ পর্যায়ে সার্বিক তত্তাবধানে ভোগ্যপণ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। এর আগে উপজেলার ভ্ররুলিয়া ও সদর ইউনিয়ন পরিষদে ৭২ জনের মাঝে সহায়তা প্রদান করা হয়। এসময় শ্যামনগর সদর চেয়ারম্যান এ্যাডঃ জহুরুল হায়দার, ভ্রুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ওমর ফারুকসহ বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যানগন সংশ্লীষ্ট ইউনিয়নের ৩৬ জন করে মোট ৪শ ৩৮ জনের মাঝে ২৬ কেজি হারে সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। সহায়তার মধ্যে চাউল ১২ কেজি, আটা ৬ কেজি, আলু ২ কেজি, ডাউল ২ কেজি, চিড়া ১ কেজি, চিনি ১ কেজি, লবন ১ কেজি, সোয়াবিন তৈল ১ লিটার ও সাবান ২ টা।
উল্লেখ্য যে, সুশীনের উদ্দ্যোগে ১২টি ইউনিয়নের মোট ৪শ ৩৪ জনের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছিল।