ষষ্ঠবারের মতো উগান্ডার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত মুসেভেনি

0
50


ষষ্ঠবারের মতো উগান্ডার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন বর্তমান ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল মুভমেন্টের (এনআরএম) নেতা ইওয়েরি মুসেভেনি। শনিবার (১৬ জানুয়ারি) পূর্ব আফ্রিকার দেশটির নির্বাচন কমিশন তাকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করে।

নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান সিমন বাইবাকামা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন। বলেন, ৫৮ লাখ ৫১ হাজার ৩৭ জন ভোটার ৭৬ বছর বয়সী মুসেভেনিকে ভোট দিয়েছেন। যা মোট ভোটের ৫৮ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রবার্ট কিগুলানাই ৩৪ লাখ ৭৫ হাজার ২৯৮ ভোট পেয়েছেন। মোট ভোটের ৩৪ দশকি ৮৩ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন পপ স্টার থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া কিগুলানাই। ফলাফলকে ভুয়া আখ্যা দিয়েছে প্রত্যাখ্যান করেছেন তিনি।

পপ স্টার কিগুলানাই ববি ওয়াইন নামে বেশি পরিচিত। বিরোধী দলের এ নেতা বলেন, বুধবার দেশটির সরকার ইন্টারনেট পরিষেবা এবং সবধরনের সামাজিক মাধ্যম বন্ধ করে দেয়। আমার বিশ্বাস, ভোট কেন্দ্র থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ভোটের ফলাফল যাতে বাইরে না যায় এবং কারচুপি করার জন্য এ ব্যবস্থা নিয়েছে ক্ষমতাসীনরা।

৩৮ বছর বয়সী ওয়াইন বলেন, সেনাবাহিনী এবং পুলিশ বেশকিছু জায়গায় ভোটারদের সিল মারা ব্যালট সরবরাহ করেছে। নিরাপত্তা বাহিনী মুসেভেনিকে ভোট দিতে ভোটারদের প্রভাবিত করেছে। ভোটদানে মুসেভেনির বাহিনী বিঘ্ন ঘটিয়েছে বলেও অভিযোগ তার।

‘আমরা দাবির সপক্ষে তথ্য প্রমাণ জোগাড় করেছি। সারাদেশে ইন্টারনেট পরিষেবা চালে হলে এসব প্রকাশ করা হবে।’ বলেন ওয়াইন।

ওয়াইনের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে সেনাবাহিনী। বাহিনীর মুখপাত্র ডিও আকিকি বলেন, মিথ্যা দাবির মাধ্যমে উগান্ডার ডিফেন্স বাহিনীকে কলঙ্কিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে চারটায় ভোট গ্রহণ শেষ হয়। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বিজয়ী প্রেসিডেন্টের নাম ঘোষণার বিধান রয়েছে।

বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে উগান্ডার ভোটাররা তাদের প্রেসিডেন্ট, পার্লামেন্ট সদস্য এবং স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধি নির্বাচনে ভোট দেন।

মুসেভেনির বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট পদের জন্য ৯ জন প্রার্থী লড়াই করেন। ১৯৮৬ সাল থেকে উগান্ডার ক্ষমতায় রয়েছেন মুসেভেনি।