সরকারের টানা চারবার ক্ষমতায় থাকা দরকার: কাদের

0
285

নিজস্ব প্রতিবেদক : বর্তমান সরকার দুই মেয়াদে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে দাবি করে আরও দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা দরকার বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, সরকারের ধারাবাহিকতা না থাকলে উন্নয়ন থেমে যাবে।

১৭ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসকে সামনে রেখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাএলীগের উদ্যোগে সোমবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার আগে আগে বিদেশ যান শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। এরপর ছয় বছর তিনি ভারতেই কাটিয়েছেন। ১৯৮১ সালের ১৭ মে তিনি দেশে ফেরেন। সেই থেকে এই দিনটিকে আওয়ামী লীগ গুরুত্বের সঙ্গে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস হিসেবে পালন করে।

বর্তমান সরকার দেশে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সরকারের ক্ষমতা যদি কনটিনিউটি (চলমান) না থাকে তাহলে সরকারের উন্নয়ন বন্ধ হয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘৭৫ পরবর্তী সময়ে সবচেয়ে সফল রাজনীতিবিদের নাম শেখ হাসিনা। যিনি তার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বিশ্বের ১০ জন নেতার একজন হয়েছেন। শেখ হাসিনার এই উন্নয়ন অগ্রযাত্রার ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্য আবারও আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় থাকা প্রয়োজন। কারণ, একটা দেশের উন্নয়নের জন্য একটা সরকারকে কমপক্ষে চারবার ক্ষমতায় থাকা দরকার।’

তবে দশম সংসদ নির্বাচনে বিএনপির বর্জনের মুখে আওয়ামী লীগ সহজেই জিতে আসলেও আগামী সংসদ নির্বাচনে জয় সহজ হবে না বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘আগামী নির্বাচন সহজ হবে না, কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগবিরোধী সব দল একত্রিত হবে।’ আওয়ামী লীগ বিরোধীদের সঙ্গে লড়াইয়ে নিজেদের মধ্যে বিভেদ যেন বাধা না হয়, সেদিনে নজর রাখার তাগিদও দেন দলের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘তাই প্রয়োজন ঐক্য ঐক্য ঐক্য, এখানে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই।’

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি পূরণ না হওয়ায় ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপি। সেই দাবি পূরণ না হলেও বিএনপি এবার নির্বাচনে অংশ নেবে বলেই মনে করছে আওয়ামী লীগ। আর এ জন্য দলকে প্রস্তুত করতে তাগিদ দিচ্ছেন ওবায়দুল কাদের।

দলকে চাঙ্গা করতে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের দিয়ে গঠিত সাংগঠনিক কমিটির সফরে বিভিন্ন জেলায় সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপির প্রতি টিপ্পনি কেটেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘বিএনপি সরকারের বিরুদ্ধে নয়, ঘুরে দাঁড়িয়েছে নিজেদের বিরুদ্ধেই।’ তিনি বলেন, ‘আজকে তারা ভিশনের বিপরীতে ভিশন দিয়ে বলছে তাদের দল নাকি চাঙা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে দলীয় কোন্দলের কারণে ভালভাবে সভা, সমাবেশ ও করতে পারে না। যার ফলে এখন তারা নিজেরা নিজেদের বিপরীতে ঘুরে দাড়িয়েছে সরকারের বিপক্ষে নয়।’

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘১৯৮১ সালের ১৭ মে দিনটি ছিল আওয়ামী লীগ ছাএলীগ তথা সকল শ্রেণিপেশার মানুষের জন্য আনন্দের দিন। কারণ, সেদিন সকল শূন্যতা পূর্ণতা পেয়েছিল। যেমনটি পেয়েছিল ১৯৭২ এর ১০ জানুয়ারির বঙ্গবন্ধুর দেশে ফেরার মাধ্যমে।’

দেশে ফেরার পর শেখ হাসিনাকে অসংখ্যবার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। এর উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রাজনীতির পথ বড় ঝুঁকিপূর্ণ ও দুর্গম পথ। এটি মসৃন পথ নয়। ৭৫ পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে অন্তত ২০ বার হত্যা করতে চেষ্টা করেছে স্বাধীনতাবিরোধীরা, কিন্তু সৃষ্টিকর্তার অসীম কৃপায় তিনি বার বার মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে এসেছেন। তারপরও ষড়যন্ত্র কমেনি, এখনো ষড়যন্ত্র তাকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাএলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্সের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ছাএলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here