সুদখোর মফিজুলের খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত একটি পরিবার

0
328

কেশবপুরে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

কেশবপুর, (যশোর) প্রতিনিধি: কেশবপুর উপজেলার চিংড়া বাজারের চিহ্নিত সুদখোর মফিজুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি শক্তিশালী সুদখোর সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। এ চক্রের পাতনো ফাঁদে পড়ে সর্বস্বান্ত হয়েছেন ওই এলাকার কমপক্ষে ২০টি পরিবার। গত মঙ্গলবার বিকেলে চিংড়া বাজারের ওই চক্রের পাতানো ফাঁদে পড়ে নিঃস্ব হওয়া চিংড়া গ্রামের রশিদুল ইসলাম এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।
লিখিত বক্তব্য পাঠকালে তিনি জানান, উপজেলার চিংড়া গ্রামের ইমান আলী মোড়লের ছেলে মফিজুল ইসলামের নেতৃত্বে চিংড়া বাজারে একটি শক্তিশালী সুদখোর সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। সে দীর্ঘদিন ধরে এলাকার গরীব, নিরীহ, অসহায় অশিক্ষিত হিন্দু, মুসলমান ব্যক্তিদের কাছ থেকে সাদা স্ট্যাম্পের ওপর স্বাক্ষর করে নিয়ে নামমাত্র সুদে টাকা দেয়। পরে ওই টাকা সুদাসলে ফেরৎ দেয়ার সময় দেখা যায় সুদখোর মফিজুল ইসলাম সাব রেজিস্টারকে ঘুষের বিনিময়ে ম্যনেজ করে সুদে টাকা গ্রহণকারী ব্যক্তির ভিটেবাড়ি, জায়গা জমি তার নামে লিখে নিয়েছে। পরে টাকার বিনিময়ে পুলিশকে ম্যানেজ করে ওই পরিবারকে উচ্ছেদ করে জমি জবর দখল করে নেয়। এভাবে তিনি ওই এলাকার ২০টি পরিবারকে নিঃস্ব করে এক যুগেই কোটিপতি বনে গেছেন। ক্ষতিগ্রস্থরা তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেও কোন ফল পায়নি।
রশিদুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে আরও অভিযোগ করেন, তিনি ২০০৪ সালে বিদেশ (মালয়েশিয়া) যাওয়ার সময় ফেরত দলিলের মাধ্যমে সুদখোর মফিজুলের কাছ থেকে ২ লাখ টাকা সুদে নেন। পরে তিনি সুদাসলসহ তার পাওনা ২ লাখ টাকা তার পিতা এরাদ আলী বিশ্বাসের মাধ্যমে মফিজুলের কাছে টাকা ফেরত দিলে সে টাকা নিয়ে নেয়। কিন্তু দলিল ফেরত না দিয়ে তার সমস্ত সম্পত্তি প্রতারণা করে জবর দখল করে নেয়। এরপর থেকে রশিদুল ইসলাম ন্যায় বিচারের আশায় বিভিন্ন সময়ে একাধিক দপ্তরে অভিযোগ দিয়ে আসছেন। কিন্তু তিনি অসহায় ও গরীব হওয়ায় বরাবরই ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে কোথাও অভিযোগ দেয়া হলেও সে একজন সন্ত্রাসী হওয়ায় ভয়ভীতি ও মোটা অংকের টাকা দিয়ে পার পেয়ে যায়। তিনি সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে ওই সুদখোরের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গহনের জন্যে ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মেহেদী হাসান,মিজানুর মোড়ল,কুদ্রতুল্যা কালু সহ এলাকার ব্যাক্তিবর্গ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here