সেকেন্ডে ৯ হাজার কিউসেক পানি স্প্রিল ওয়ের মাধ্যমে কর্ণফুলী নদীতে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে

0
259

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রবল বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে দেশের বৃহত্তম কাপ্তাই লেকে পানির উচ্চতা বিপজ্জনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক : পানির বিপৎসীমা ছুঁই ছুঁই অবস্থায় থাকায় কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং কাপ্তাই বাঁধের নিরাপত্তার স্বার্থে লেক থেকে প্রতি সেকেন্ডে ৯ হাজার কিউসেক পানি স্প্রিল ওয়ের মাধ্যমে কর্ণফুলী নদীতে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে।

সোমবার সকাল থেকে কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ স্প্রিল ওয়ের ১৬টি গেটের প্রতিটি ছয় ইঞ্চি করে খুলে দিয়ে লেকের পানি নদীতে ছেড়ে দিচ্ছে বলে জানা গেছে। পানি ছাড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী আবদুর রহমান।

কাপ্তাই বিদ্যুৎকেন্দ্র কর্তৃপক্ষ সূত্র জানায়, গত কয়েকদিন ধরে চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রবল বর্ষণ এবং কাপ্তাই লেকের উপরিভাগে ভারতীয় সীমান্ত এলাকায় বর্ষণের ফলে ঠেকার মুখ নামক এলাকা দিয়ে কাপ্তাই লেকে প্রবল বেগে পানি প্রবেশ করছে। ভারতীয় সীমান্তে বৃষ্টিপাতে সৃষ্টি হয়েছে পাহাড়ি ঢলের। এ ছাড়া চট্টগ্রামেও বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। এমন অবস্থায় কাপ্তাই লেকের পানির উচ্চতা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকৌশলীরা জানান, কাপ্তাই লেকে পানির সর্বোচ্চ ধারণ ক্ষমতা ১০৯ ফুট (মিনস সি লেবেল)। এর মধ্যে গত বুধবার সকালে লেকে পানির উচ্চতা ছিল প্রায় ১০৬ ফুট । এই মৌসুমে কাপ্তাই লেকে ৮৮ এমএসএল পানি থাকার কথা। স্বাভাবিকের চেয়ে এখন লেকে পানি বেশি রয়েছে প্রায় ১৮ ফুট। পানির চাপ বেড়ে যাওয়ায় এবং পানির চাপ অব্যাহতভাবে বৃদ্ধি পেতে থাকায় কাপ্তাই বাঁধের স্প্রিল ওয়ের ১৬টি গেটের সবকটি গেট সোমবার সকাল থেকে ৬ ইঞ্চি করে খুলে দেওয়া হয়েছে। এতে লেক থেকে প্রতি সেকেন্ডে ৯ হাজার কিউসেক পানি কর্ণফুলী নদীতে গিয়ে পড়ছে। লেকের পানি ছেড়ে দেওয়ার ফলে কর্ণফুলী নদীতে বৃদ্ধি পাচ্ছে পানির উচ্চতা। বেড়েছে ঢল ও স্রোত। কর্ণফুলী নদীর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী আবদুর রহমান জানান, লেকের ধারণ ক্ষমতা ১০৯ ফুট হলেও ১০০ ফুটের বেশি পানি লেকে ধারণ করে রাখা বিপজ্জনক। এ ছাড়া লেকের তলদেশ ভরাট হয়ে যাওয়ার ফলে লেকের পানি ধারণ ক্ষমতা দিন দিন হৃাস পাচ্ছে। এই অবস্থায় কাপ্তাই বাঁধের নিরাপত্তায় লেক থেকে পানি ছেড়ে দেওয়া ছাড়া গত্যন্তর থাকে না।

এদিকে কাপ্তাই লেকে পর্যাপ্ত পানি থাকায় কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের উৎপাদনও বৃদ্ধি পেয়েছে বলে ব্যবস্থাপক নিশ্চিত করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here