সেন্টমার্টিনে আটকা শত শত পর্যটক

0
359

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি : বৈরী আবহাওয়ার কারণে কক্সবাজারের সেন্টমার্টিন দ্বীপে বেড়াতে গিয়ে আটকা পড়েছে শত শত পর্যটক। এছাড়া টেকনাফ ভ্রমণে আসা অন্তত পাঁচ হাজার পর্যটক সেখানে যেতে পারেনি।

শুক্রবার ভোর থেকে বৈরী আবহাওয়া ও ৩ নং সতর্ক সংকেত থাকায় টেকনাফ থেকে কোন জাহাজ সেন্টমার্টিন যায়নি। এজন্য পর্যটকরা ফিরতে পারছে না।

তবে আটকাপড়া পর্যটকরা নিরাপদে রয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। তারা বৃহস্পতিবার সকালে সেন্টমার্টিন ভ্রমণে গিয়েছিল।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূর আহমদ মোবাইল ফোনে বলেন, ‘শুক্রবার ভোরে হঠাৎ আবহাওয়া পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে সেন্টমার্টিনে প্রায় দেড় হাজার পর্যটক আটকা পড়েছে। তাদের যাতে খাদ্য ও থাকাসহ কোন ধরনের অসুবিধা না হয়, তা খেয়াল রাখা হচ্ছে।’

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শফিউল আলম বলেন, ‘বৈরী আবহাওয়ার কারণে নৌরুটে জাহাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সেন্টমার্টিনে আটকাপড়া পর্যটকদের খোঁজ-খবর নেওয়া হয়েছে। তারা সবাই নিরাপদে রয়েছেন। আবহাওয়া পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে জাহাজে আটকাপড়া পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হবে।’

এদিকে, সেন্টমার্টিন দ্বীপে যেতে না পেরে অনেক পর্যটক টেকনাফের বিভিন্ন হোটেল-মোটেলে অবস্থান করেছে। কেউ কেউ আবার কক্সবাজারে ফিরে যাচ্ছে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ একেএম নাজমুল হক জানান, সঞ্চালনশীল মেঘমালার জন্য সাগর উত্তাল থাকতে পারে। সেজন্য আবহাওয়া অধিদফতর থেকে ৩নং সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সাগর ও নাফ নদেতে মাছ শিকার ও পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

এসময় মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে বলেও জানান এ আবহাওয়াবিদ।

পর্যটকবাহী জাহাজ ‘কেয়ারি সিন্দাবাদের’ ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাহ আলম জানান, প্রতিদিনই টেকনাফ সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদ, কেয়ারি ড্রাইনিং অ্যান্ড ক্রুজ, এমবি বাঙালি, এলসিটি কুতুবদিয়া, গ্রিন লাইন, বে ক্রুজ ও এলসিটি কাজল চলাচল করে। কিন্তু শুক্রবার বৃষ্টি ও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে প্রায় ৫ হাজার পর্যটক সেন্টমার্টিন যেতে পারেনি। ফলে যাত্রীদের টিকিটের টাকা ফেরত দিতে হয়েছে।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাঈন উদ্দিন খান বলেন, ‘সেন্টমার্টিনে আটকাপড়া পর্যটকরা যেন হয়রানির শিকার না হয় সে বিষয়ে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে জাহাজ চলাচল করতে না পারায় তারা টেকনাফ ফিরতে পারেনি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here