সড়কে মৃত্যু ফাঁদ : প্রয়োজন দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা

0
202

টাঙ্গাইলে গত সোমবার একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারাইয়া খাদে উলটাইয়া পড়ে। এই দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই নিহত হইয়াছেন সাত যাত্রী। আহত হইয়াছেন ৩০ জন। টাঙ্গাইলের এই দুর্ঘটনা ছাড়াও ওইদিন সড়ক দুর্ঘটনায় বিভিন্ন স্থানে প্রাণ গিয়াছে আরো ১২ জনের। প্রকৃতপক্ষে ‘সড়ক দুর্ঘটনা’ কথাটি হইয়া উঠিয়াছে বাংলাদেশের নিত্য-আতঙ্কের প্রতিশব্দ। দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু মানেই একটি পরিবারের সারা জীবনের কান্না ও দীর্ঘশ্বাস। একটি পরিসংখ্যান হইতে জানা যায়, দেশের হাসপাতালসমূহের ২৫ শতাংশ শয্যা দখল করিয়া আছে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত মানুষ। অন্যদিকে দেশে ১৪ শতাংশ মৃত্যু হয় সড়ক দুর্ঘটনায়।

সারা বিশ্বে প্রতি বত্সর সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায় ১০ লক্ষ মানুষ। ইহা ছাড়াও দুর্ঘটনাজনিত পঙ্গু মানুষের সংখ্যা ৫০ লক্ষের উপরে। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় দেখা গিয়াছে, বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনা ও মৃত্যুর হার বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশি। আমেরিকায় প্রতি দশ সহস্রাধিক গাড়ির বিপরীতে মারা যায় দুই জন, পাকিস্তানে ১৯ জন, ভারতে ২৫ জন। আর বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজার গাড়ির বিপরীতে দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু হয় ৬০ জনের। বিশ্লেষণে দেখা গিয়াছে যে, যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনা কম হইবার কারণ হইল—সেখানে চালক ও পথচারী সবাই ট্রাফিক আইন মানিয়া চলে। সড়ক সুপ্রশস্ত, চালকরা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত। ট্রাফিক পুলিশেরা দুর্নীতির ঊর্ধ্বে। ইহা বেশির ভাগ উন্নত দেশের চিত্র। কিন্তু এই দেশে আধুনিক বিশ্বের নিয়ম-শৃঙ্খলা এখনো সুদূরপরাহত। বুয়েটের দুর্ঘটনা গবেষণা কেন্দ্রের তথ্যমতে, সড়কের সক্ষমতার চাইতে অতিরিক্ত গতিতে গাড়ি চালানো ও ওভারটেকের মনোভাবের কারণেই হ্রাস পাইতেছে না সড়কে মৃত্যুর ঘটনা। বুয়েটের এই সংস্থাটির তথ্যমতে, গড়ে প্রতিদিন সড়কে প্রাণ হারায় ১১ জন মানুষ। সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি এইদেশে সড়ক দুর্ঘটনার সাতটি কারণ চিহ্নিত করিয়াছে। কারণসমূহের অন্যতম হইল—বেপরোয়া গাড়ি চালানো, অদক্ষ-লাইসেন্সবিহীন চালক নিয়োগ, নিয়ম ভঙ্গ করিয়া ওভারলোডিং-ওভারটেকিং করিবার প্রবণতা, চালকদের দীর্ঘক্ষণ-বিরামহীন গাড়ি চালানো, ট্রাফিক আইন যথাযথভাবে অনুসরণ না করা, ত্রুটিপূর্ণ গাড়ি চলাচল বন্ধে আইনের যথাযথ প্রয়োগ না করা এবং ঝুঁকিপূর্ণ বাঁক ও বেহাল সড়ক। তাহা ছাড়া দেশে ৯০ ভাগ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটিতেছে গাড়ির বেপরোয়া গতি এবং যত্রতত্র রাস্তা পারাপারের কারণে।

সত্যিকার অর্থে আমাদের দেশে যে ব্যাপক অব্যবস্থা ও অনিয়ম রহিয়াছে তাহাতে যে আরো বিপুল প্রাণহানি ঘটে না—ইহা কম বিস্ময়ের নহে। আর, অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা কোথায় নাই? নিয়ম না মানিবার যে প্রতিযোগিতা দিকে দিকে দৃশ্যমান—তাহার প্রতিফলন ঘটে সড়ক-মহাসড়কেও। কিন্তু এই জন্য মূল্য দিতে হয় অনেক বেশি। সুতরাং সড়ক দুর্ঘটনার লাগাম টানিয়া ধরিতে প্রয়োজন দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here