হাজারো মানুষের ভালবাসায় অশ্রুসিক্ত বিদায় ঝিনাইদহের “হরি” ধানের উদ্ভাবক হরিপদ কাপালীর

0
250

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহ: দেশে সাড়া জাগানো “হরি” ধানের উদ্ভাবক হরিপদ কাপালীকে অশ্রুসিক্ত বিদায় জানালেন হাজারো মানুষ। বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলীয়ারপুর শ্বশানে গ্রামবাসি, ভক্ত ও অনুরাগীদের ফুলেল শুভেচ্ছায় জাত কৃষক হরিপদ চির বিদায় নেন। এর আগে ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, ঝিনাইদহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শাহ আকরামুল হক, ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ড. মনিরুজ্জামান, সাধুহাটী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন ও বঞ্চিত সংগঠনের চেয়ারম্যান আনোয়ার পাশা বিদ্যুৎ তার মরদেহের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় মিডিয়াকর্মী, কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন গ্রামের মানুষ আসাননগর গ্রামে উপস্থিত ছিলেন।

হরিপদ কাপালী বুধবার দিনগত রাত ১.১০টার সময় ঝিনাইদহ সদর উপজেলার সাধুহাটী ইউনিয়নের আসাননগর গ্রামে বার্ধক্য জনিত কারণে পরলোকগমন করেন। হরিপদর মৃত্যুর খবরে ঝিনাইদহ ও চুয়াডাঙ্গার বিভিন্ন গ্রাম থেকে শত শত শোকার্ত মানুষ ছুটে আসেন। এক নজর তার মরদেহ দেখতে ভীড় করেন তার বাড়িতে। কৃষক হরিপদ কাপালীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন, চ্যানেল আই এর বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ। তিনি এই জাত কৃষকের মৃত্যুতে তার পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন। এদিকে ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু হরিপদ কাপালীর পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে বলেন, হরিধান আবিস্কার করে কৃষক হরিপদ অজীবন মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। তার অবদান দীর্ঘদিন মানুষ মনে রাখবেন।

বংকিরা গ্রামের বঞ্চিত মানুষের সংগঠনের উপদেষ্টা ছিলেন হরিপদ কাপালী। তার মৃত্যুতে বঞ্চিত সংগঠনের চেয়ারম্যান আনোয়ার পাশা বিদ্যূৎ বলেন, আমরা মর্মাহত ও বাকরুদ্ধ এই জাত কৃষককে হারিয়ে। ঝিনাইদহের কৃষি কর্মকর্তা ড. মনিরুজ্জামান বলেন, ক্ষরা, পোকামাকড় ও বন্যা সহিষ্ণু হরিধান উদ্ভাবন করে তিনি যে নজীর সৃষ্টি করে গেছেন তা অজীবন কৃষি বিভাগ মনে রাখবে। স্থানীয় চেয়ারম্যান কাজী নাজির উদ্দীন জানান, হরিপদ জাত কৃষক হলেও তিনি এলাকার সন্মানিত নাগরিক ছিলেন। তার উদ্ভাবনী শক্তি শ্রদ্ধা করার মতো। তিনি সরকারের কাছে এই আধুনিক কৃষকের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি দাবী করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here