হামলাকারীকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

0
175

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিশিষ্ট লেখক ও বুদ্ধিজীবী শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলায় জড়িতদেরকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই হামলার সময় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন খুলনা সফরে। সেখানে ১০০টি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন ও ভিত্তি স্থাপন শেষে জনসভা করে ফেরার সময় এই ঘটনাটি হয়। তাৎক্ষণিকভাবে খবর পৌঁছে যায় তার কাছে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব এহসানুল করিম জানান, প্রধানমন্ত্রী এই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। একইসঙ্গে প্রকৃত দোষীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

জাফর ইকবাল এখন সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। প্রধানমন্ত্রী তার শারীরিক অবস্থার নিয়মিত খোঁজ খবর রাখছেন বলেও জানান ইহসানুল করিম।

শনিবার এই হামলার পর পরই এক যুবক আটক হয়েছে। তবে তার নাম ও পরিচয় এখনও জানা যায়নি। তিনি কেনই বা হামলা করেছেন, সেটাও এখনও অজানা।

যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষা শেষ করে ১৯৮৮ তে বিখ্যাত বেল কমিউনিকেশনস রিসার্চ (বেলকোর) এ গবেষক হিসাবে যোগ দেন জাফর ইকবাল। কিন্তু দেশের টানে তিনি ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশে ফিরে এসে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগে যোগ দেন।

মুক্তিযুদ্ধের সময় বাবাকে হারানো জাফর ইকবাল বাংলাদেশের বিশিষ্ট লেখক হুমায়ূন আহমেদের ভাই।

ভাইয়ের মতো জাফর ইকবালও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে লেখালেখি করেছেন সব সময়। আর লেখনির কারণে তিনি বারবার রোষানলে পড়েছেন উগ্রবাদীদের। তার ওপর হামলার হুমকি দিয়ে ২০১৬ সালের ১২ অক্টোবর ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে এসএমএমও পাঠানো হয়।

ওই বছরেই জাফর ইকবালের নিরাপত্তায় পুলিশ দেয়া হয়। কিন্তু তিনি সে নিরাপত্তা পরে ফিরিয়ে দেন।

অশুভ ইঙ্গিত: কাদের

প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও এই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে কাদের বলেন, ‘জাফর ইকবালের মতো সকলের শ্রদ্ধাভাজন শিক্ষকের ওপর এই হামলা দেশে অশুভ শক্তির অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির ইঙ্গিত বহন করে।

গ্রেপ্তার যুবকসহ এই হামলার ন্যাপথে থাকা সবার মুখোশ উন্মোচন এবং অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শান্তির দাবিও জানান কাদের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here