৫৭ ধারায় মামলা করায় সেই সাংবাদিককে শোকজ করেছে দৈনিক স্পন্দন

0
323

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর থেকে প্রকাশিত দৈনিক স্পন্দন পত্রিকার ডুমুরিয়া প্রতিনিধি সুব্রত ফৌজদারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। পত্রিকা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা না বলে সাংবাদিক পরিচয় ব্যবহার করে ৫৭ ধারায় মামলা করার কারণে তাকে শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়েছে। বুধবার বিকালে এই পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানান দৈনিক স্পন্দনের বার্তা সম্পাদক শিকদার খালিদ।

শিকদার খালিদ বলেন, ‘অফিসের সঙ্গে আলোচনা না করে স্পর্শকাতর ইস্যুতে পদক্ষেপ নিয়েছেন সুব্রত। এ বিষয়ে তিনি পত্রিকার পরিচয় ব্যবহার করলেও অফিসের অনুমতি নেননি। তাই তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে জবাব পাঠাতে বলা হয়েছে।’ সুব্রত ফৌজদার আড়াই বছর ধরে দৈনিক স্পন্দনে কাজ করছেন বলে জানান খালিদ।

মামলার বিষয়ে সুব্রত বলেন, ‘ছাগলের মৃত্যু তো বড় বিষয় নয়। ওই স্ট্যাটাসের সঙ্গে মন্ত্রীর একটি ছবি দেওয়া হয়েছে। মৃত ছাগলের ছবি দেওয়া যেত। ছাগলের মালিকের ছবি দেওয়া যেত। কিন্তু মন্ত্রীর ছবি কেন?’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার আঘাতের জায়গা হলো মন্ত্রী স্যারের সম্মান। ডুমুরিয়ায় প্রধান অতিথি হিসেবে মন্ত্রী ছাগল বিতরণ করেছেন। কিন্তু ছাগলতো তিনি আনেননি। প্রাণিসম্পদ অধিদফতর এফসিডিআই প্রকল্পের ছাগল বিতরণ করেছে। ছাগল কিনেছে ঠিকাদারের মাধ্যমে। সেই ছাগল একটি মরিছে সত্য। কিন্তু তার কী দোষ।’

উল্লেখ্য গত ২৯ জুলাই খুলনার ডুমুরিয়ায় এফসিডিআই প্রকল্পের আওতায় প্রাণিসম্পদ অধিদফতর কিছু পরিবারের মধ্যে হাঁস, মুরগী ও ছাগল বিতরণ করে। ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ। এর পর ‘প্রতিমন্ত্রীর সকালে বিতরণ করা ছাগল রাতে মৃত্যু’-ফেসবুকে এই পোস্ট দেন দৈনিক প্রবাহের ডুমুরিয়া প্রতিনিধি আবদুল লতিফ মোড়ল। এই ঘটনায় তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় লতিফের বিরুদ্ধে মামলা করেন সুব্রত ফৌজদার। ৩১ জুলাই মামলার পর ওই দিনই মধ্যরাতে বাড়িতে গিয়ে ঘুম থেকে তুলে লতিফকে গ্রেফতার করা হয়। বুধবার (২ আগস্ট) তিনি জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here