তালার দলুয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের সাজানো বোর্ড : এলাকায় ক্ষোভ

0
148

স্বচ্ছ নিয়োগ বোর্ডের দাবীতে জেলা প্রশাসক’র নিকট অভিযোগ
বি. এম. জুলফিকার রায়হান:তালার দলুয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগে অনিয়ম ও ঘুষ বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। মেধাবী ও যোগ্য প্রার্থীদের পাশ কাটিয়ে ১০ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে পরিকল্পিত ভাবে আজিজুর রহমান নামের এক প্রার্থীকে দিয়োগ দিতে অপতৎপরতা চালানো হচ্ছে। এবিষয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির দাতা সদস্য ইউসুফ আলী সরদার বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক’র নিকট অভিযোগ দায়ের করেছেন।
সূত্রে জানাগেছে, দলুয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নতুন ম্যানেজিং কমিটির কতিপয় প্রভাবশালী নেতৃবৃন্দ এবং সুবিধাভোগী একটি মহল পরস্পর যোগসাজস করে দুলয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়কে জিম্মি করে রেখেছে। তারা ইতোপূর্বে ১৫ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে বিধি মোতাবেক নিয়োগের অযোগ্য প্রার্থীকে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেন। নিয়োগের পর ওই শিক্ষক উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস ও উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে ম্যানেজ করে তার নিয়োগ বৈধ করেন। বর্তমানে সেই প্রধান শিক্ষক সহ ম্যানেজিং কমিটির কতিপয় প্রভাবশালী নেতৃবৃন্দ এবং সুবিধাভোগী মহলটি গোপনীয় ভাবে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগের পায়তারা চালাচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির দাতা সদস্য ইউসুফ আলী’র অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, গোপনে বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর পছন্দের প্রার্থীকে নিয়োগ দিতে পরিকল্পিত ভাবে সংশ্লিষ্ট প্রার্থী আজিজুর রহমান ও তার স্বপক্ষের জন্য একাধিক প্রার্থীর আবেদন করানো হয়। গত ৫ নভেম্বর নিয়োগ বোর্ড সংক্রান্তে ম্যানেজিং কমিটির কথিত সভায় চলতি মাসের ২৪ তারিখে নিয়োগ বোর্ডের তারিখ নির্ধারন করা হয়। এজন্য ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বোর্ডের সকল সদস্যদের এরইমধ্যে ম্যানেজ সম্পন্ন করেন। কিন্তু কথিত নিয়োগ বোর্ডের আগের দিন ১০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে আজিজুর রহমান নামের এক প্রার্থীকে পরিকল্পিত ভাবে নিয়োগ দেবার বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায়। এতে বিদ্যালয়ের সাধারন শিক্ষক, কর্মচারী, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য এবং এলাকার শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিদের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ক্ষুব্ধ ব্যক্তিদের আবদেনে জেলা শিক্ষা অফিসের পক্ষ থেকে পাতানো নিয়োগ বোর্ড বন্ধ করানো হয়। এরপরও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি সহ কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা ঘুষের ১০ লক্ষ টাকা নিষ্কন্ঠক করতে আবারও নিয়োগ বোর্ড করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগে বলা হয়েছে।
এবিষয়ে জানতে চাইলে দলুয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুশান্ত সরকার জানান, গত ২৪ নভেম্বর সাতক্ষীরার ধুলিহর ডিবি হাইস্কুলে অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ বোর্ড করার তারিখ নির্ধারন ছিল। কিন্তু জেলা শিক্ষা অফিসার মহোদয়ের নির্দেশে সেই নিয়োগ বাতিল হয়। এছাড়া জেলা শিক্ষা অফিসারের নির্দেশনা মোতাবেক নতুন স্থলে নিয়োগ বোর্ড করার পক্রিয়া চলছে বলে তিনি জানান। তবে, সাজানো সেই নিয়োগ বোর্ডের কার্যক্রম বাতিল করে সঠিক ও স্বচ্ছ ভাবে নিয়োগ বোর্ড করার জন্য শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিরা সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক সহ সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।