বেনাপোলের উল্লাস লটারির ফাঁদে ফতুর হচ্ছে ঝিকরগাছা, চৌগাছা ও মনিরামপুরবাসীও

0
2889

এম আর মাসুদ : বন্দর নগরী বেনাপোলে মাসব্যাপি চলমান গ্রামীন শিল্প ও বাণিজ্য মেলার বিশেষ আকর্ষণ উল্লাস র‌্যাফেলের (লটারি) আকর্ষণ বিকর্ষণে ফতুর হচ্ছে জেলার পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ। ফতুরের এলাকা বেনাপোল, শার্শা ছাড়িয়ে এখন ঝিকরগাছা, চৌগাছা ও মনিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রবেশ করেছে। র‌্যাফেলের আকর্ষণে মহাভাগ্যবান যাচাইয়ে ফতুর হওয়া মানুষের মধ্যে অধিকাংশরাই হত দরিদ্র দিন মজুর। অথচ, এ ঘটনার ২০ দিন পার হলেও টনক নড়েনি প্রশাসনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের। বরং অভিযোগ উঠেছে, প্রশাসন ও শীর্ষ জনপ্রতিনিধিদের মোটা অংকের বখরার বিনিময়ে ঢাক ঢোল পিটিয়ে দেদারছে চলছে এই র‌্যাফেলের (লটারি) ব্যবসা।

বেনাপোল পৌরসভার আয়োজনে গত ৯ জুলাই স্থানীয় বলফিল্ড মাঠে মাসব্যাপি এই গ্রামীন শিল্প ও বাণিজ্য মেলা শুরু হয়। মেলা শুরুর দিন থেকে দৈনিক র‌্যাফেলের (লটারি) আকর্ষণে মানুষ ফতুর হওয়া শুরু হয়। প্রথম দিকে এই র‌্যাফেলের (লটারি) টিকিট বেনাপোল কেন্দ্রিক বিক্রি করলেও এখন তা ঝিকরগাছা, চৌগাছা ও মনিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা জুড়ে নিয়েছে। ২০ টাকা মূল্যের টিকিটের বিনিময়ে নিজেকে মহাভাগ্যবান যাচাইয়ে লোভনীয় পুরস্কার লুফে নিতে এক শ্রেনির মানুষ যেন উদ্মাদ হয়ে গেছে। জানা গেছে, প্রতিদিন ২০০ টি প্রচার গাড়ি টিকিট বিক্রি করতে বের হয়। শুক্রবার ঝিকরগাছা উপজেলার বল্লা বাজারে ্েক চা দোকানে বসে অপেক্ষায় থাকা মিজানুর রহমান নামে এক ব্যক্তি আক্ষেপ করে বলছিলেন, বেনাপোলের লটারি টিকিট কিনতে চাইছিলাম কিন্তু টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। উপজেলার মিশ্রিদেয়াড়া বাজারের সার ব্যবসায়ী রুহুল কুদ্দুস বৃহস্পতিবার তার ২য় শ্রেণিতে পড়–য়া ছেলের জন্য র‌্যাফেলের (লটারি) টিকিট কেনার জন্য ঘুরছিলেন ঝিকরগাছা বাজারে। বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির সভাপতি এবং গদখালী ফুল চাষী ও ব্যাবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাবেক সভাপতি আব্দুর রহিম জানান, বেনাপোলের র‌্যাফেলের (লটারি) টিকিটে সাধারণ মানুষ নিঃস্ব হচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে পুরো টাকার টিকিট কেনার ঘটনাও আছে। প্রতিদিন রাত ৯ টার দিকে সিটি ক্যাবল নেটওয়ার্কে র‌্যাফেল (লটারি) ড্রর অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার দেখতে টিকিট ক্রয়কারী মানুষের ভিড় জমে যায় টেলিভিশনের সামনে। এলাকাবাসি অবিলম্বে র‌্যাফেল (লটারি) নামে এই ফতুর খেলা বন্ধের আহবান জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here