যশোরের ঝিকরগাছার অদম্য তামান্না নুরাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন

0
131

এক পা দিয়েই এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া যশোরের ঝিকরগাছার জন্ম প্রতিবন্ধি তামান্না আক্তার নুরাকে ফোন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সোমবার রাত ৮টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফোনে ফোনে মিষ্টি আড্ডা দেন তামান্না নুরার সাথে। তিনি নুরাকে আশ্বস্ত করে বলেন, ‘তোমার পাশে আমি আছি তুমি এগিয়ে যাও।’
প্রধানমন্ত্রীর ফোন পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে যান নুরা ও তার পরিবার। কথা বলার ভাষা হারিয়ে শুধুই কাঁদেন।
যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান ফোনালাপের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার মাধ্যমেই এ ফোনালাপ হয়েছে।
নুরার বাবা রওশন আলী জানান প্রধানমন্ত্রীর ফোন পাওয়ার পর আমরা ভাষা হারিয়ে ফেলি। আমার সন্তানের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী নিয়েছেন এর চেয়ে সৌভাগ্য আর কী হতে পারে?
তিনি আরো জানান বিকেল ৫টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন শেখ রেহানা লন্ডন থেকে তামান্না নুরার কাছে ফোন করেন। তিনিও নুরাকে আশ্বস্ত করেন, এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখান।
এরআগে স্বপ্ন পূরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা ও দেখা করার জন্য চিঠি লেখে জন্মপ্রতিবন্ধী অদম্য শিক্ষার্থী তামান্না নুরা। তামান্নার পায়ে লেখা চিঠি তার বাবা রওশন আলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুবুল হকের নিকট জমা দিলে ওই দিনই তা জেলা প্রশাসকের নিকট পাঠানো হয়েছে। দরখাস্ত পেয়ে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান তামান্নার বাবাকে ফোন করে দেখা করতে বলেন। জেলা প্রশাসকের সাথে রওশন আলী দেখা করেন।
যশোর জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের নির্দেশে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক (উপসচিব) হুসাইন শওকত ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুবুল হক বাঁকড়ার আলীপুর গ্রামের দুই হাত ও এক পা বিহীন অদম্য শিক্ষার্থী তামান্নার বাড়িতে যান। তার পড়াশুনা ও পারিবারিক সার্বিক খোঁজ-খবর নেন। এসময় তারা তামান্না ইচ্ছার কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে লিখিত আবেদন করার পরামর্শ দেন।
তামান্না নুরা পিইসি, জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়ে মেধার সাক্ষর রেখেছে।