যশোরে ১শ টন নকল সার কীটনাশক উদ্ধার, কারাখানা মালিককে জরিমানা ৬ মাসের কারাদন্ড

0
108

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে ভেজাল সার ও কীটনাশক তৈরি এবং বাজারজাতকরণের দায়ে কারখানা মালিক সোহানুর রহমান শিহাবকে (২৪) কে ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড ও২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। জব্দ করা হয়েছে প্রায় ১শ টন ভেজাল সার কীটনাশক ও ভেজাল সার তৈরীর বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্বার।
গত বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সংবাদ ও বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও যশোর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মনিম লিংকনের ভ্রাম্যমাণ আদালত এই রায় দেন।
ভ্রাম্যমান আদালত জানতে পারেন যশোর সদর উপজেলার ‘ঘুরুলিয়া গ্রামে সান ওভার এগ্রো কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রি’ ( সাবেক নাম সুমি এগ্রো কেমিক্যাল) নামে একটি কারখানায় নকল সার ও কীটনাশক তৈরি এবং তা বিপণন করা হয়। সোর্সের গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আদালত সন্ধ্যায় সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন এবং দেখতে পান, দস্তা সার, এসপি সার এবং ফুরাডান কীটনাশক ইত্যাদি কাঠের গুঁড়ো, টাইলসের গুঁড়ো,সিলেকশন বালি, টাইলসের গুড়া, ক্যালসিয়াম কার্বনেট পাউডার স্যান্ড, রঙ ও অ্যাসিড দিয়ে ভেজাল সার তৈরি করা হচ্ছে। আদালতের উপস্হিতিতে টের পেয়ে এসময় ভেজাল সার তৈরীর মুল হোতা আনোয়ার হোসেন লাল্টু পালিয়ে যায়। আর ধরা পড়ে তার ছেলে বর্তমানে দায়িত্বে থাকা তার ছেলে শিহাব। এসময় বা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত সার ব্যবস্থাপনা আইন ২০০৬ (১) ধারায় কারখানায় থাকা বর্তমান মালিক শিহাবকে ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দেন করেন।
অভিযানে থাকা যশোর সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শেখ সাজ্জাদ হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন ভেজাল সার মালিক বা প্রস্তুতকারকদের ধরতে অভিযান অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, ওই কারখানা থেকে প্রায় ১শ টন নকল সার ও কীটনাশকসহ অন্যান্য ভেজাল মালামাল জব্দ করা হয়েছে। পরে মালামাল সরিয়ে কারখানা সিলগালা করা হয়।#