0
182

অবশেষে পুলিশের হেপাজত থেকে ছাড়া পেলেন আওয়ামীলীগ নেতা মাহমুদ হাসান বিপু

নিজস্ব প্রতিবেদক : পুলিশের হেপাজতে থাকা যশোর শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপুকে ১৯ ঘন্টা পর ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ । গতকাল সন্ধ্যারাতে  ইমরান নামে এক পুলিশ সদস্যকে মারপিট ও অপহরণ চেষ্টার অভিযোগে পুলিশ তাকেসহ আরও কয়েকজনকে হেফাজতে নিয়েছিল।

পুলিশের অভিযোগ, ১১ জানুয়ারি  রাত আটটার দিকে শহরের পুরাতন কসবাস্থ  কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় সাদা পোশাকে ইমরান নামে  এক পুলিশ সদস্য তার বান্ধবীর সঙ্গে কথা বলছিলেন। এ সময় ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় নেতাকর্মী সেখানে গিয়ে  নারীর সাথে গল্প করতে দেখে ইমরানের  ওপর চড়াও হন। ইমরান নিজের পরিচয় দিয়ে ও পরিচয়পত্র দেখান।  কিন্তু আগনতকরা তাতে ক্ষ্যান্ত না হয়ে তাকে মারপিট করে এবং ‘অপহরণ করে’ পাশের আবু নাসের ক্লাবে নিয়ে যায়। এ সময়  শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপুও সেখানে ছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশের  কয়েকজন কর্মকর্তা সেখামে যান এবং শহীদ ইমারানকে উদ্ধার ও আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ হাসান বিপুসহ ৪ জনকে হেফাজতে নেন  । এরপর প্রায় ১৯ ঘন্টা ধরে তাদের পুলিশ হেফাজতে রাখা হ্য়। এরপর আজ দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে  কোতোয়ালী থানা থেকে মাহমুদ হাসান  বিপুকে মুক্তি দেয়া হয়।

কোতোয়ালী থানার   ওসি (তদন্ত) শেখ তাসমীম আলমও  বিপুর মুক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন,  আজ দুপুরের পর মাহমুদ হাসান  বিপু বাড়ি চলে গেছেন। তার সাথে আর যাদের হেফাজতে নেয়া হয়েছিল তাদের মধ্য দুই/একজন অপরাধে জড়িত বলে তিনি জাজান। তাদের ঐ মামলায় আটক দেখানো হবে।

এদিকে মুক্তি পেয়ে শহর আওয়ামী লীগের এই শীর্ষ নেতা   জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে যান। তিনি বলেন, হামলার শিকার পুলিশ সদস্যকে তিনি রক্ষা করেছেন। কারণ ওইসময় অনেক মানুষ তাকে মারতে উদ্যত হয়েছিল। আমি তাকে সেফ করার জন্যই সেখান থেকে নিয়ে যাই। অন্যথায়  আরো খারাপ পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারতো।