ইউএনও’র নামভাঙ্গিয়ে কপোতাক্ষ বেড়িবাধের মাটি কেটে নিচ্ছে ইটভাটায়

0
462

মো. রিপন হোসাইন, পাটকেলঘাটা : পাটকেলঘাটা কপোতাক্ষ নদের তীরে আচিমতলা গ্রামে গড়ে তোলা মেসার্স ফারাহ ব্রিকস মালিক রেজাউল ইসলাম বাবু উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নাম ভাঙ্গিয়ে ৩ মাস ব্যাপী কপোতাক্ষ নদে নির্মিত ভেড়িবাধের মাটি কেটে নিয়ে বানিজ্যিক ভাবে ইট প্রস্তুত অব্যাহত রেখেছে। প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল  ভোর রাত্র ৪টায় দিকে ৩০জন শ্রমিক দ্বারা ৭টি নৌকায় করে বেড়িবাধের মাটি কেটে ইট ভাটায় নিতে থাকে । স্থানীয় বাসিন্দাদের মাধ্যমে খবর পেয়ে সাংবাদিকরা বেড়িবাধের মাটি কাটা ছবি তুলতে গেলে শ্রমিক সরদার আচিমতলা গ্রামের কিয়ামদ্দীন মোড়লের পুত্র আন্তবিভাগীয় মটরসাইকেল চোরাই চক্রের হোতা শহিদুল মোড়ল(৪৫) অপর সর্দার হাফিজুর রহমান(৪৩) সাংবাদিকদের উপর হামলে পড়ে । এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাস দিতে থাকে । এসময় স্থানীয় বাসিন্দারা বেড়িবাধে উপস্থিত হয়ে প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসীরা পিছু হঠে। এবং বলতে থাকে নির্বাহী অফিসারের কথা মতো মাটি কাটা হচ্ছে, কারো কিছু করার নেই, কারো কিছু করা থাকলে করে নিও। বিষয়টি তাৎক্ষনিক সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ,জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা নিকট লিখিত ভাবে জানানো হলে জরুরী ভিক্তিতে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি)তালাকে নির্দেশ দেন। এর প্রেক্ষিতে সহকারী কমিশনার ভূমি ছুটিতে থাকায়  পাটকেলঘাটা ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তা বেড়িবাধ পরিদর্শন করে মাটি কাটা বন্ধ করে দেন। এলাকাবাসী অভিযোগ ঐ ইট ভাটা মালিক সারা বছর ধরে ৭টি নৌকায় ৩০ জন শ্রমিক দ্বারা কপোতাক্ষ নদের নির্মিত বেড়িবাধের লক্ষ লক্ষ ঘনফুট মাটি অবৈধ ভাবে কেটে নিয়ে ইট প্রস্থুত করে আসছেন। তার এসব অপকর্মের মহড়া দিয়ে থাকে মোটর  সাইকেল চোরাই চক্রে হোতা শহিদুল ও মাটি কর্তনের হোতা হাফিজুর রহমান হাপিকে নিয়োগ দিয়ে রাখা হয়েছে। কেউ মাটি কাটার কথা বলতে ঐ দু’সন্ত্রাসী দাপটে সাহস পায় না । এলাকাবাসী বেড়িবাধের মাটি কর্তনকারী ইটভাটা মালিক ও তার নিয়োগ কৃত দু’কর্মচারীকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন। এ বিষয়ে তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে জানতে হলে তিনি ভাটা মালিককে দড়ি দিয়ে বেথে রেখে আমাকে জানাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here