ইবি’র ইতিহাস বিভাগের রজত জয়ন্তী

0
276

রাশেদুন নবী রাশেদ, ইবি প্রতিনিধি : বর্ণাঢ্য আয়োজনে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রথম রজত জয়ন্তী ও এ্যালামনাই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেককাটা, র‌্যালী, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দুই দিনব্যাপী এই আয়োজনের আজ শেষ হয়।

জানা গেছে, ১৯৯০-৯১ সালে এই বিভাগটি যাত্রা শুরু করে। শুরু থেকে বর্তমান সকল শিক্ষার্থীদেও নিয়ে ২৫ বছর পূর্তিতে রজত জয়ন্তী ও এ্যালামনাই এর আয়োজন করে বিভাগটি। অনুষ্ঠানের ১ম দিনের উদ্বোধন করেন বিভাগের শিক্ষক প্রফেসর ড. রুহুল কুদ্দুস মোঃ সালেহ। পরে স্মৃতিচারণ পর্ব এবং বিভাগের শিক্ষার্থীদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রথম দিনের আয়োজন শেষ হয়।

দ্বিতীয় দিন শনিবার সকাল দশটায় বিভাগের শিক্ষক-কর্মকর্তা, কর্মচারী, সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাঃ জাহাঙ্গীর হোসেন এর নেতৃত্বে অনুষদ ভবনের সামনে থেকে একটি আনন্দ র‌্যালী বের করে। র‌্যালীটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে আলোচনা সভা, এলামনাই গঠন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু।

বিভাগের শিক্ষার্থী রওজাতুন রুম্মান রিদী এবং রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বিভাগের শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যেষ্ঠ্য প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুল লতিফ।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভিসি প্রফেসর ড. মো: হারুন-উর-রশিদ আসকারী। বিশেষ অতিথি প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মো: সেলিম তোহা, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ হাবিবুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন। এসময় বিভাগের  প্রফেসর ড. মোঃ এমতাজ হোসেন, প্রফেসর ড. মহিব্বুল ইসলাম, প্রফেসর ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন, প্রফেসর ড. মোঃ শরিফুল ইসলাম, সহযোগী অধ্যাপক এম এম শরীফুল ইসলাম বারী, ড. আবদুল গফুর গাজী, ড. মোহাঃ শাহাবুল আলম ও ড. আবদুল বারীসহ সকল শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় এ্যালামনাইদের উদ্দেশ্যে প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, ‘আমরা জানি তোমরা অনেক উচুঁ পর্যায়ে আছো। আমাদের বিশ্বাস আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে উচ্চ মর্যাদার আসনে সমীচীন করতে তোমরাই কার্যকরী পদক্ষেপ নিবে। এই রজত জয়ন্তী ও এ্যালামনাই এর মাধ্যমে আশাকরি আমাদেও সাথে তোমাদেও সকলের বন্ধন আরো দৃঢ় হবে।”

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভিসি প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, “আমাদের বিশ্ববিদ্যালকে জাতীয়ভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। আর সেজন্য প্রত্যেক বিভাগকে এ্যালামনাই আয়োজন করে সারা দেশে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতিত্ব তুলে ধরতে হবে। একজন শিক্ষিত  মানুষ পারে একটি দেশকে অগ্রগতির দিকে নিয়ে যেতে। শিক্ষিত মানুষ হতে হলে তাকে অবশ্যই দেশের ইতিহাস সম্পর্কে পরিপূর্ণ জ্ঞান রাখতে হবে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here