উত্তরাঞ্চলে পরিবহন ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন, ভোগান্তিতে ব্যবসায়ীরা

0
234
উত্তরাঞ্চলে পরিবহন ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিন, ভোগান্তিতে ব্যবসায়ীরা!

ঢাকা প্রতিনিধি : সাত দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে উত্তরবঙ্গ ট্রাক, ট্যাংক লরি, কাভার্ডভ্যান ও পিকআপ মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা ৪৮ ঘণ্টার পণ্য পরিবহন ধর্মঘট। এতে উত্তরাঞ্চলে পণ্য পরিবহনে অচলাবস্থা দেখা দেওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। রবিবার ভোর ৬টা থেকে শুরু হওয়া এই ধর্মঘট মঙ্গলবার ভোর ৬টায় শেষ হবে।

গত শনিবার সন্ধ্যায় উত্তরবঙ্গ ট্রাক, ট্যাংক লরি, কাভার্ডভ্যান ও পিকআপ মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ অধিকার আদায় বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক এবং বগুড়া জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মান্নান আকন্দ এ ঘোষণা দেন।

সড়ক-মহাসড়কে পুলিশি হয়রানি বন্ধ, বাম্পার, সাইড অ্যাঙ্গেল এবং হুক খোলার সরকারি আদেশ অবিলম্বে প্রত্যাহার, বিভিন্ন স্থানে স্থাপিত ওজন যন্ত্রের নামে চাঁদাবাজি বন্ধ, মহাসড়কে অবৈধ যান চলাচল বন্ধসহ সাত দফা দাবি বাস্তবায়নে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে।

ক্ষোভ প্রকাশ করে আব্দুল মান্নান আকন্দ বলেন, চলতি মাসের মধ্যে যদি এই সাত দফা দাবি মেনে নেয়া না হয় তাহলে ঈদুল ফিতরের পরে লাগাতার কর্মবিরতি পালনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, কর্মবিরতির কারণে উত্তরাঞ্চলে পণ্য পরিবহনে ভোগান্তিতে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। সোনামসজিদ স্থলবন্দর থেকে পণ্য দেশের কোনো স্থানে পরিবহন করা সম্ভব হচ্ছে না। এতে করে বন্দরে পণ্যজটের সৃষ্টি হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. হারুন অর রশিদ জানান, গতকাল ভারত থেকে এই বন্দরে দেড়শ পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশ করেছে। আজ সোমবারও প্রায় সমপরিমাণ ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকায় পঁচনশীল পণ্য ফল ও পেঁয়াজ নিয়ে লোকসানে চিন্তিত রয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

এর আগে, রবিবার রাজশাহী চেম্বারের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনি জানান, বন্দরে বহু পণ্যবাহি ট্রাক আটকা পড়ে আছে। এতে করে ব্যবসায়ীরা লোকসানের মুখে পড়েছেন। এছাড়া প্রতিদিন রাজশাহী থেকে সবজি ও মাছ দেশের বিভিন্ন জেলায় পাঠানো হয়। কর্মবিরতির কারণে এসব পণ্য পরিবহন করতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here