এবার জয়দেবপুরে জঙ্গিবিরোধী বিশেষ অভিযান শুরু

0
266

নিজেস্ব প্রতিবেদক : জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ও মাদক প্রতিরোধে গাজীপুরের জয়দেবপুরে শনিবার থেকে বিশেষ অভিযান শুরু করেছে জেলা পুলিশের পাঁচ শতাধিক সদস্য। জয়দেবপুর থানা এলাকার নয়টি ওয়ার্ডে একযোগে এ অভিযান শুরু করা হয়। স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে না আসা পর্যন্ত একটানা এ কার্যক্রম চলবে।

জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুন-অর-রশীদ অভিযান শুরুর আগে দুপুরে গাজীপুর জেলা পুলিশ লাইনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘রাজধানীর কাছাকাছি হওয়ায় গাজীপুরের শিল্প শহর জয়দেবপুর থানা এলাকায় জঙ্গি সংগঠনের নেতা-কর্মী, সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামিরা অবস্থান নিতে পারে এমন আশঙ্কা থেকে এ অভিযান চালানো হচ্ছে। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সিটি করপোরেশনের জয়দেবপুর থানা এলাকার নয়টি ওয়ার্ড ৪৫টি ভাগে ভাগ হয়ে পাঁচ শতাধিক পুলিশ দুপুর তিনটার দিকে একযোগে অভিযান শুরু করে। পুলিশ সদস্যরা এ অভিযানে পর্যায়ক্রমে এলাকার প্রতিটি বাড়িতে যাবে। বাড়ির মালিকদের সহযোগিতায় ভাড়াটিয়াদের ফ্ল্যাট বা কক্ষে তল্লাশি চালাবে। অভিযানের সময় বাড়িওয়ালাদের পাওয়া না গেলে পুলিশ সরাসরি বাড়িতে প্রবেশ করবে। যেসব বাড়িতে বাড়ির মালিকরা থাকেন না সেখানে কারা, কতদিন ধরে অবস্থান করছেন, তাদের পেশা কী এবং কখন, কিভাবে বাড়িতে যাওয়া আসা করেন তা মাথায় রেখে একযোগে তল্লাশি চালানো হবে। এ অভিযানে ভাড়াটিয়া ও মালিকদের ব্যাপারে বিভিন্ন তথ্যও সংগ্রহ করবে পুলিশ। এছাড়া বাড়ির মালিকদের সন্ত্রাসী ও জঙ্গিদের বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি করতে লিফলেট এবং ভাড়াটিয়াদের তথ্য ফরম বিতরণ করবেন। এ অভিযান পর্যায়ক্রমে পুরো জেলায় পরিচালিত হবে।

পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ বলেন, ‘গাজীপুর শিল্প এলাকা রাজধানী সংলগ্ন হওয়ায় এ জেলার জয়দেবপুর থানা এলাকায় লাখ লাখ মানুষ বসবাস করেন। প্রতিদিন এখান থেকে অগণিত মানুষ রাজধানীতে যাওয়া আসা করেন। এ এলাকা নিরাপদ ভেবে সন্ত্রাসীরা এখানে আশ্রয় নেয়।  ইতোপূর্বে টঙ্গী থেকে হুজি নেতা মুফতি হান্নানকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। এছাড়া আগেও বিভিন্ন অভিযানে টঙ্গী থেকে অনেক জঙ্গি গ্রেফতার হয়েছে। এই জেলায় ছয়টি জেলখানা রয়েছে। অপরাধীরা অপরাধ করে এসব জেলখানার আশপাশে জঙ্গি-সন্ত্রাসীরা আশ্রয় নেয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এডিশনাল এসপি) মোহাম্মদ সুলাইমান জানান, জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজ দমনে পুলিশের এ বিশেষ অভিযান এলাকায় চলছে। জেলার ছয়জন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, তিন জন সহকারী পুলিশ সুপারদের নেতৃত্বে  পাঁচ শতাধিক পুলিশ গাজীপুর সিটির নয়টি ওয়ার্ডের ৪৫টি স্পটে একযোগে অভিযান শুরু করে। পুলিশ সুপার পুরো অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন এবং পুরো বিষয়টি নজরদারি করছেন।’

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২৩ এপ্রিল গাজীপুর সিটি করপোরেশনের টঙ্গী মডেল থানা এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। ওই অভিযানকালে টঙ্গীর বনমালা রোড ও আরিচপুর এলাকা থেকে দুই নারীসহ ১০ জনকে বিপুল সংখ্যক জিহাদি বই ও লিফলেট, তিনটি দেশীয় অস্ত্র ও মাদকসহ আটক করে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here