কুমিল্লা বাড়ছে বিভিন্ন পরিচয়ে প্রতারক চক্র

0
145

মনির হোসেন : কালের বিবর্তনে যুগে যুগে মানব  সমাজে প্রতারক চক্রের চাল-চিত্র দিন দিন বেড়েই চলছে।  তথ্য-প্রযুক্তি এবং আইনের শাসনামলে সমাজের রন্দে রন্দে ঘাপ্টি মেরে থাকা এসব ঠক প্রতারক  দল ক্রমাণয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। কুমিল্লার সিটিকোপরেশনসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলা সাংবাদিক ও বিভিন্ন সংগঠনের পরিচয়ে এমনই কিছু কথিত এবং ভূঁয়া সাংবাদিক ও সংগঠক সহ ঠক প্রতারক এবং ভন্ডদের নাম অনুসন্ধানে উঠে আসছে। কুমিল্লার ভুয়া সাংবাদিক মানসুর,মোতালেব ও সংগঠক খাজা বাহাউদ্দিন তাদের মধ্যে অন্যতম। তাদের প্রতারনা ও অপকর্মে অতিষ্ঠ নগরবাসী। অভিনব কৌশলে  থেকে শুরু করে বিভিন্ন অপকর্মে উজ্জল দৃষ্টান্ত এই ভুয়া সাংবাদিক মানসুর ও মোতালেব এবং সংগঠক খাজা বাহাউদ্দিন । অনুসন্ধানে উঠে এসেছে তার অপকর্মের সকল চিত্র।

জানা যায়,গত ২০ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লার লালমাই উপজেলার ভুশ্চি বাজারে গিয়ে নিজেকে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে এক পল্লী চিকিৎসকের কাছে ঘুষ চান ভুয়া সাংবাদিক মোতালেব হোসেন ভূঁইয়া। এসময় জনতা তাকে মারধর করে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে জেলহাজতে পাঠায়। ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে প্রতারণার দায়ে মাত্র এক মাস আগেই জেলে গিয়েছিলেন মোতালেব হোসেন ভূঁইয়া। কিন্তু জেল থেকে বেরিয়ে আবারও একই কায়দায় প্রতারণা শুরু করেন তিনি। তবে এবারও তার জায়গা হলো শ্রীঘরে।লালমাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক কে এম ইয়াসির আরাফাত এই দণ্ড দেন। এর আগে গত ১৩ মে জেলার দেবিদ্বারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রবিন্দ্র চাকমা একই অপরাধে তাকে ৭ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে ভুশ্চি বাজারস্থ রেদোয়ান মেডিকেল হলে গিয়ে নিজেকে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দেন মোতালেব হোসেন ভূঁইয়া। এসময় তিনি ওই মেডিকেল হলের মালিক পল্লী চিকিৎসক রেদোয়ানুর রহমানের শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ তার চিকিৎসাসেবা দেয়ার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেন। এক পর্যায়ে তিনি রেদোয়ানুরের কাছে ঘুষ দাবি করেন। এতে বাজারের ব্যবসায়ী ও উৎসুক জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে মারধর করে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আটক করে।এদিকে গত ১৩ মে কুমিল্লা দেবিদ্বার উপজেলার খাদঘর এলাকায় চাঁদাবাজি ও প্রতারনার দুপুর ১ টায় ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের দেবিদ্বারের খাদঘর এলাকা থেকে আব্দুল্লাহ আল মানসুর ও মোতালেব হোসেনকে আটক করা হয়।  এই দুই ভুয়া সাংবাদিক বিভিন্ন সময় চাঁদাবাজি করে করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহিরুল আনোয়ার জানান, বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিক পরিচয়ে ভয়-ভীতি দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে স্থানীয়রা  তাদের আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।  এ বিষয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে তাদেরকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়। এদিকে কুমিল্লা ভারতের ভিসা সেন্টারে চাকরি দেওয়ার আশ্বাসে দেবিদ্বার উপজেলার আবদুর রহমানের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে খাজা বা্হাউদ্দিন নামে এক প্রতারক চক্র। তিনি কুমিল্লা আলাপন থিয়েটারে সভাপতি বলে জানা যায়। গত ১২ জুন বুধবার কুমিল্লা নগরীর মনোহপুর সোনালী ব্যাংক সংলগ্ন খাজা বাহাউদ্দিন (৫০)কে চেক জালিয়াতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে কুমিল্লা পুলিশ। কুমিল্লা কোতয়ালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শামীম জানান, চেক প্রতারণার মামলায় কুমিল্লার একটি আদালত খাজা বাহাউদ্দিনকে দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। এতদিন খাজা বাহাউদ্দিন  গ্রেফতার এড়াতে পালিয়ে ছিলেন। সূত্রে জানা যায়,খাজা বাহাউদ্দিন অনেক দিন ধরে সাধারন মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছে।

গত ১৭ জানুয়ারী কুমিল্লা জেলার অন্তর্গত নাঙ্গলকোট উপজেলায় প্যারাগণ বিডি নামক একটু ভূয়া অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে গ্রাহক প্রতারনা অভিযোগ পাওয়া যায়। প্যারাগণ ওয়ার্ল্ড নামক প্রতিষ্ঠানটি সরকারি অনুমোদন আছে এমনটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান পরিচালক আজগর হোসাইন অনিক বল্লেও তথ্য প্রমান নিইয়ে দেখা যায় এই প্রতিষ্ঠানের কোন অনুমোদনই নাই শুধু একটি ডোমেইন হোষ্টিং নিয়ে ব্যবসার নামে প্রতারনা করে দেউলিয়া বানিয়ে দিচ্ছে সাধারণ জনগনকে।

গত ৫ মাচ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে বুড়নকরা গ্রামের ফরায়েজী ডেইরী এন্ড পোল্ট্রি খামারের অফিসে অভিযান চালায় র‌্যাব-১১ এর একটি দল।এ সময় অফিসের গোপন কক্ষ থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক তৈরির সরঞ্জাম চিনির সিরাপ, ফ্লেভার, ঘন চিনি, রং, স্পিরিট, খালী বোতল, বোতলের কর্ক, লেভেল জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় কথিত সাংবাদিক শামীমকেও আটক করা হয়। শামীম উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের বুড়নকরা গ্রামের উত্তর পাড়ার শাহ আলম ফরায়েজীর ছেলে।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here