কেশবপুরে মাদ্রাসার জমি প্রতারণা করে বিক্রির অভিযোগ

0
241

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের কেশবপুর উপজেলার সন্ন্যাসগাছা বালিকা দাখিল মাদ্রাসার ১৬ শতক জমি ওই মাদ্রাসার সুপার প্রতারণা করে একটি মহলের কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে প্রায় ২ মাসে আগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করা হলেও অদ্যাবধি কোন প্রতিকার মেলেনি।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮১ সালে এলাকাবাসির সহযোগিতায় ১ একর ৮ শতক জমির ওপর সন্ন্যাসগাছা বালিকা দাখিল মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এ মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাকালিন সুপার না থাকার সুযোগে ভারপ্রাপ্ত সুপার আব্দুল গফুর আনছারী প্রতারণা করে গত ২৯ অক্টোবর ওই মাদ্রাসার নামিও ১৬ শতক জমি একই গ্রামের আবিদ হোসেন, আহসান হাবিব, শাহিনুর রহমান, শামিম হোসেনদের নামে ৫৪৬৬ নং দলিলমূলে রেজিষ্ট্র করে দেয়। এ ঘটনা জানতে পেরে মাদ্রাসার অভিভাবক সদস্য মোস্তাক সরদার প্রতিকার চেয়ে গত ৮ নভেম্বর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। অভিযোগের অনুলিপি মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর খুলনা অঞ্চলের উপপরিচালক, জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসনের একাধিক দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার আব্দুল গফুর আনছারী ঘটনার সত্যতা স্বিকার করে বলেন, ওই জমি ৪ জনের নামে ঘোষনা রেজিষ্ট্রি করে দিয়েছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিজানূর রহমান বলেন, জমির মালিক না হয়ে যদি কোন ব্যাক্তি জমি কারো নামে রেজিষ্ট্রি করে দেয় তা হলে তো ক্রেতা মালিক হয়ে গেল না। প্রতিষ্ঠানের জমি প্রতিষ্ঠানেই থাকবে। এ বিষয় পদক্ষেপ নেওয়ার মত কিছু নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here