খাদ্যাভাবে যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে সেবিকা শিক্ষার্থী অসুস্থ”-হাসপাতালে ভর্তি ৯

0
735

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে আট সেবিকা শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। নার্সিং ইনসটিটিউটে অব্যবস্থাপনা ও বহুল আলোচিত কর্তাদের লুটপাটের কারণে খাদ্যাভাবে ছাত্রী সেবিকাদের এই হাল হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অসুস্থ ছাত্রী সেবিকারা হলেন হাসপাতাল কম্পাউন্ডে অবস্থিত নার্সিং ইনসটিটিউটের বিভিন্ন বর্ষের ছাত্রী, লিমা, সুরাইয়া, নাজনীন, সালমা, নূপুর, মুন্নি, সাথী, মুক্তা ও শারমিন। মঙ্গলবার রাতে একে একে অসুস্থ হয়ে পড়তে থাকলে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

একাধিক ছাত্রী সেবিকা ও হাসপাতালে রোগী কল্যান সমিতির সাস্কৃতিক সম্পাদক ও হাসপাতাল স্বাস্থ্যসেবা উপকমিটির সদস্য এসএম জাহাঙ্গির হোসেন খোকন জানান, সরকার স্বাস্থ্য সেবা নিয়ে খুবই আন্তরিক। শুনেছি নার্সিং ইনসটিটিউটের ইন্চার্জরা ভয়ানকভাবে দুর্নীতিগ্রস্ত। ছাত্রী নিবাসের বাজারের টাকার মোটা অংশ একাধিক সূত্রে শুনেছি তারা মেরে দেন। এমনকী হোস্টেলে থাকা ছাত্রীদের ঠিকমতো খাবারও জোটে না। মঙ্গলবার দুপুরে ছাত্রী সেবিকাদের শুধু ঢেড়সের তরকারি দিয়ে ভাত খেতে দেওয়া হয়; যা খুবই অমানবিক। ক্ষুধা ও প্রচন্ড গরমে ছাত্রী সেবিকারা অসুস্থ হয়ে পড়তে থাকেন। এর সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে জাহাঙ্গির হোসেন খোকন প্রতিকার দাবি জানান।

নার্সীং ইনসটিটিউটের সভাপতি সেলিনা ইয়াসমিন পুষ্প ওই রাত পৌন ১১টায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘হোস্টেলে ৩১৫ জন ছাত্রী সেবিকা আছে। একটি রুমে ৪-৫ জন করে থাকার কথা। কিন্তু ১০-১২ জন করে কক্ষে থাকে । কক্ষে বৈদ্যুতিক পাখাও অপ্রতুল। সে কারণে ছাত্রীরা গরমে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে ছাত্রী সেবিকাদের খাবারের কষ্টের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, এই অভিযোগ সঠিক না।

যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সহকারী রেজিস্ট্রার ডাক্তার মোস্তফা কামাল সৈকত বলেন, পেটে ক্ষুধা থাকলে শরীরে অনেক ধরনের অসুস্থতা দেখা দিতে পারে। তবে সেবিকারা অসুস্থ হয়ে পড়েছে প্রচন্ড গরমে। এই রোগের নাম ম্যাস সাইকো ইলনেস’। একাধিক চিকিৎসকরা বলছেন, ছাত্রী সেবিকারা ম্যাস সাইকো ইলনেসে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রচণ্ড গরমে অভুক্ত থাকলে এ ধরনের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here