জাতীয় সংসদের ৩৩২ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন ।। বাড়ছে আপ্যায়ন ভাতা, গ্যাস সংযোগ প্রস্তাবে না

0
104

নিজস্ব প্রতিবেদক : সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদে কর্মরতদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করে আসন্ন ২০১৮-১০১৯ অর্থ বছরে সংসদ সচিবালয়ের জন্য ৩৩২ কোটি ৫৩ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন দিয়েছে সংসদ কমিশন। এতে দ্বিগুণ করা হয়েছে সংসদীয় কমিটির বৈঠকের আপ্যায়ন খরচ। বাড়নো হয়েছে কর্মচারীদের খাবার ও অতিরিক্ত খাটুনি ভাতাও। সব মিলিয়ে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের চেয়ে এবার ১৭ কোটি ৬২ লাখ টাকা বেশি বরাদ্দের প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে।

সংসদ ভবনে রবিবার অনুষ্ঠিত সংসদ কমিশনের বৈঠকে এ বাজেট অনুমোদন করা হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিশনের চেয়ারম্যান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এবং বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া সংসদের প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ বিশেষ আমন্ত্রণে বৈঠকে যোগ দেন। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবদুর রব হাওলাদারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানায়, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদ লাইব্রেরিকে আরো সমৃদ্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে। এজন্য প্রয়োজনীয় বই ও বিদেশী সংসদের নথি সংগ্রহে উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে।

সংসদের বাজেট ৩৩২ কোটি ৫৩ লাখ
বৈঠকে জাতীয় সংসদের জন্য উন্নয়ন ও অনুন্নয়ন খাতে মোট ৩৩২ কোটি ৫৩ লাখ টাকার প্রাক্কলিত বাজেট অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে অনুন্নয়ন খাতে ২৯৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকা এবং উন্নয়ন খাতে ৩৪ কোটি ১০ লাখ টাকা বরাদ্দের অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে ২০১৯-২০২০, ২০২১-২০২২ অর্থবছরের বাজেট প্রক্ষেপণ অনুমোদন করা হয়। একই সঙ্গে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটেরও অনুমোদন দেয়া হয়।

এমপি ও কর্মরতদের নানা সুবিধা
বৈঠক শেষে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, কমিশন বৈঠকে পদোন্নতির ক্ষেত্রে আলাদা পদোন্নতি না দিয়ে সব বিষয় একত্র করে নিয়োগবিধির আলোকে পদোন্নতি দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সংসদীয় কমিটির বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের জন্য আগে নাস্তাবাবদ ৫০ টাকা বরাদ্দ থাকলেও এখন ১০০ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া সংসদ অধিবেশনকালীন প্রিভিলেজ কর্মকর্তাসহ সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারী, দৈনিকভিত্তিক সাংবাৎসরিক কর্মচারীদের জন্য অতিরিক্ত খাটুনি ভাতা ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা করা হয়েছে। আর অধিবেশন না থাকলে তাদের খাটুনি ভাতা ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা করা হয়েছে। আর সংসদ অধিবেশনকালীন দুপুরের ভাতা বা ইফতার ১৫০ টাকা থেকে ২০০ করা হয়েছে। আর বার্তাবাহকদের যে বেতন বা মজুরি তা ৫০০ টাকা করা হয়েছে। এছাড়া সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য রাজধানীর পশ্চিম আগারগাঁওয়ে নবনির্মিত আবাসিক কমপ্লেক্স ৪৪৮টি ফ্ল্যাটের জন্য নির্মিত মসজিদের জন্য ইমাম ও মোয়াজ্জিনের পদ সৃষ্টির প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে। বৈঠকে সংসদের নকশা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। তবে সংসদের লাইব্রেরি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানান স্পিকার। তিনি বলেন, লাইব্রেরির যে সংস্কার কাজ চলছে তার একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রধানমন্ত্রীকে দেখানো হয়েছে। তিনি বলেছেন, বইয়ের সংখ্যা আরও বাড়াতে হবে। এ বিষয়ে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) কিছু সাজেশন দিয়েছেন। অন্যান্য দেশের সংসদের প্র্যাকটিসের ওপরে যেসব প্রকাশনা আছে তা সংগ্রহ করার জন্য বলেছেন। এখন সংসদের লাইব্রেরিতে ৩৫ হাজার বই আছে। আর ডকুমেন্ট আছে ৪০ হাজার। যেসব বইগুলো আছে সেগুলো হার্ডকপি ক্যাটালগ। এগুলো জুলাইয়ের মধ্যে অনলাইনভিত্তিক করতে পারবে লাইব্রেরি।

গ্যাস লাইনের প্রস্তাব নাকচ
সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য রাজধানীর পশ্চিম আগারগাঁওয়ে নবনির্মিত আবাসিক কমপ্লেক্সে ৪৪৮টি ফ্ল্যাট আছে। কিন্তু সেখানে গ্যাসের কোনো সংযোগ নেই। এসব ফ্ল্যাটে গ্যাসের সংযোগ দেয়ার জন্য প্রস্তাব করা হলে প্রধানমন্ত্রী তা নাচক করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, বাসাবাড়িতে সরকার আর কোনো গ্যাস দেবে না। এটা ফাইনাল। এখন সরকারি যত ফ্ল্যাট আছে সেখানে এলপিজি স্টোরেজ বানানো হবে। সেখান থেকে লাইন দেয়া হবে। বাসাবাড়িতেও এই পদ্ধতি চালু হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here