তালা হাসপাতালে ডাক্তার সংকট নিরসনের দাবীতে মানববন্ধন

0
361

তালা প্রতিনিধি : তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তার সংকট নিরসনসহ বিভিন্ন দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। তালা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে সোমবার সকালে প্রেস ক্লাবের সামনে উক্ত মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
মানববন্ধন কর্মসূচীতে সভাপতিত্ব করেন প্রেসক্লাব সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগ নেতা প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু। তালা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সরদার মশিয়ার রহমানের পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন, তালা মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মো. আব্দুর রহমান, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ এনামুল ইসলাম, আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমটির সহ-সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম, তালা সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সরদার জাকির হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোড়ল আব্দুর রশিদ, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও ভূমিজ ফাউন্ডেশন পরিচালক অচিন্ত্য সাহা, এনজিও উন্নয়ন প্রচেষ্টা পরিচালক শেখ ইয়াকুব আলী, মুক্তি ফাউন্ডেশন পরিচালক গোবিন্দ ঘোষ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মো. মফিজ উদ্দীন, ডেপুটি কমান্ডার মোঃ আলাউদ্দীন জোয়াদ্দার, তালা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম, যুগ্ন-সম্পাদক মির্জা আতিয়ার রহমান, তালা প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা এমএ হাকিম, জেএসডি’র কেন্দ্রীয় নেতা মীর জিল্লুর রহমান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সরদার ইমান আলী, উপজেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি গাজী আব্দুল জলিল, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা পিএম গোলাম মোস্তফা, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক মোশারাফ হোসেন, শুভাষিনী কলেজের অধ্যক্ষ কামরুল ইসলাম সেলিম, মাগুরা আইডিয়াল মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ রামপ্রসাদ দাশ, প্রধান শিক্ষক শক্তি পদ কর, সমাজসেবক খন্দকার মোয়াজ্জেম হোসেন রঞ্জু, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের তালা উপজেলা সভাপতি শেখ জাহিদুর রহমান লিটু এবং ছাত্রদলের সভাপতি সাইদুর রহমান প্রমুখ।
উল্লেখ্য, তালা উপজেলায় প্রায় ৪ লাখ মানুষের চিকিৎসা সেবার একমাত্র অবলম্বন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। সেখানে ৩৪ জন ডাক্তারের পদ থাকলেও আছে মাত্র ৬ জন। তারমধ্যে অনেকেই আছেন ডেপুটিশনে আবার কেউ রয়েছেন প্রশিক্ষনে। বর্তমানে হাসপাতালটিতে নেই কোন বিভাগীয় অভিজ্ঞ ডাক্তার কিংবা সার্জন। এছাড়া এ্যানেসথেসিয়া, গাইনী, চক্ষু, কনসালটেন্ট ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারও নেই এখানে। ফলে হাসপাতালে আগত রোগীদের নানান ভোগান্তিতে পড়তে হয়। কখনও চিকিৎসা না পেয়ে খুলনা বা সাতক্ষীরায় যেতে হয়। ডাক্তার সংকটের পাশাপাশি এখানে রয়েছে ওষুধ সংকট। খাদ্য তালিকা অনুযায়ী নেই সঠিক বন্টন। হাসপাতালের একমাত্র এক্স-রে মেশিনটি বিকল থাকায় রোগীদের ছুটতে হয় বাহিরে কোন প্রাইভেট ক্লিনিক অথবা সাতক্ষীরা কিংবা খুলনায়। এ সকল দৈন্যদশা ও অব্যবস্থাপনার বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহনে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করে উক্ত মানববন্ধন’র আয়োজন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here