পাইকগাছায় পোদা নদীর অবৈধ পাটা তুলে ফেলল ভূক্তভোগী এলাকাবাসী

0
265

এলাকায় উত্তেজনায় : পুলিশ মোতায়েন

নিজস্ব প্রতিবেদক, পাইকগাছা: পাইকগাছায় জলাবদ্ধতার কারণে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসী লতার বদ্ধ পোদা নদী থেকে অবৈধ নেটপাটা তুলে দিলেন। এনিয়ে এলাকায় উভয়পক্ষের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
উপজেলার লতা ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ৭৩ একর বদ্ধ পোদা নদীর জলমহল উপজেলার ফতেপুর আদর্শ মৎস্যজীবী সমবায় সমিতি জেলা প্রশাসকের নিকট থেকে ৩ বছরের জন্য ইজারা নেন। উক্ত সমিতি লতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দিবাকর বিশ্বাসের উপর দেখাশুনার দায়িত্ব দেন। চেয়ারম্যান দিবাকর বিশ্বাস তার ভাইপো যুবলীগনেতা বাবু লাল বিশ্বাস, তপন বিশ্বাস, সমর রায়, তাপস, নিউটন, দেবব্রত ঢালী, গোবিন্দ, শিব সহ একাধিক ব্যক্তিকে ৫টি খন্ডে নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে সাব-লীজ প্রদান করেন। তারা অবৈধভাবে পানি প্রবাহে বাঁধা সৃষ্টি করে নেটপাটা দিয়ে মাছ চাষ করে আসছে। সম্প্রতি টানা বর্ষণ ও ধোলাইয়ের পাউবো’র স্লুইচ গেট দিয়ে জোয়ার সৃষ্টি করে গোটা এলাকায় প্লাবিত হয়ে ঘর-বাড়ি, ফসলাদি জলমগ্ন হয়ে ক্ষয়-ক্ষতি করে। ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালেও প্রতিকার না মেলায় তারা শুক্রবার স্বতঃস্ফুর্তভাবে নদীতে থাকা নেটপাটা তুলে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করেছেন। এ ঘটনা জানাজানির পর শান্তি ভঙ্গের আশংকায় ঐ রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করেছে পাইকগাছা থানার ওসি। এ অভিযোগ প্রসঙ্গে দেবব্রত ঢালী, নিউটন জানান, এলাকার বহু মানুষ একত্রিত হয়ে খন্ডে খন্ডে বিভক্ত হয়ে এ নদীতে মাছ চাষ করে আসছে এবং পাটা তুলে ফেলায় তাদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে বলে জানান। ইজারাদার ফতেপুরের আদর্শ মৎস্যজীবী সমিতির সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম বলেন, ১৪২৩ সাল থেকে ১৪২৫ সাল পর্যন্ত ৩ বৎসর মেয়াদী তারা ইজারা গ্রহণ করেছেন এবং সাব-লীজ নয় শুধুমাত্র মাছ চাষের সুবিধার্থে লতা ইউপি চেয়ারম্যান দিবাকর বিশ্বাসের উপর দেখভালের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে লতা ইউপি চেয়ারম্যান দিবাকর বিশ্বাসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যস্ততার কারণে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলতে পারেননি। ওসি (তদন্ত) জাবীদ হাসান বলেন, এ ঘটনার পর থেকে ঐ এলাকায় যাতে শান্তি-শৃংখলা বিঘিœত না হয় সে জন্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here