‘বিলাসবহুল’ সাশ্রয়ী ট্রেন

0
335

ম্যাগপাই নিউজ ডেস্ক : ভারতে যাত্রীবাহী ট্রেনের অনেক দুর্নাম আছে। সাধারণত সেগুলো ধীর গতির এবং সেকেলে। তবে সরকার তেজাস এক্সপ্রেস নামের নতুন একটি ট্রেন চালুর মাধ্যমে চিত্রটা বদলানোর চেষ্টা করছে। মুম্বাই থেকে গোয়া পর্যন্ত রেলপথে গত সোমবার এই ট্রেন উদ্বোধনী যাত্রা করে।

১২০ কোটি মানুষের দেশটিতে রেলভ্রমণ খুবই জনপ্রিয়। সেখানে ট্রেনের ছাদে চড়ে এবং দরজায় ঝুলেও বহু মানুষ নিয়মিত যাতায়াত করে থাকে। নতুন ট্রেনটি অবশ্য জাপানে সম্প্রতি চালু হওয়া অত্যাধুনিক বিলাসবহুল ট্রেনের চেয়ে গুণমানে অনেক পিছিয়ে। তারপরও ভারতের অন্যান্য ট্রেনের তুলনায় তেজাস অনেক বেশি আকর্ষণীয়। কারণ এতে ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট, কিছু গেমস এবং অডিও চ্যানেলের সুবিধা আছে। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত গাড়িটির যাত্রীরা একটি বিশেষ বোতাম চেপেই ট্রেনে কর্তব্যরত অ্যাটেনডেন্টদের ডাকতে পারেন।

আদর্শ পারসেকার নামের এক যাত্রী প্রথম দিনে ওই ট্রেনে চড়েছেন। তাঁর কাছে অনেকটা বিমান ভ্রমণের মতোই লেগেছে। কারণ, এতে জানালা দিয়ে চাওয়ালাদের ডাকাডাকি এবং সমুচা বিক্রি নেই। সেগুলোর বদলে ভেন্ডিং মেশিন থেকে কফি মিলছে সহজেই। আর ট্রলিতে করে স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের সরবরাহও আছে। প্রতিটি বগিতে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো। আর দরজাগুলো খোলা বা বন্ধ করার কাজটা পুরোপুরি কেন্দ্রীয়ভাবে নিয়ন্ত্রিত।

রেল কর্মকর্তারা বলছেন, তেজাস এক্সপ্রেস ভারতের প্রথম বিলাসবহুল অথচ সাশ্রয়ী ট্রেন। দ্বিতীয় শ্রেণির ভাড়া জনপ্রতি ১ হাজার ১৯০ ভারতীয় রুপি, আর প্রথম শ্রেণির খরচ ২ হাজার ৫৯০ রুপি। অবশ্য এই ভাড়া একই রেলপথে চলাচলকারী অন্যান্য ট্রেনের তুলনায় প্রায় ২০ শতাংশ বেশি।

মুম্বাই থেকে গোয়া যেতে তেজাস এক্সপ্রেস সাড়ে আট ঘণ্টা সময় নেয়। এটি ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার গতিতে যেতে পারলেও লাইনে বিভিন্ন বাধার কারণে আরও কম গতিতে চলতে হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here