বিলুপ্তির পথে ঘুঘু পাখি, রুখতে হবে শিকার

0
2365

উত্তম চক্রবর্তী : বাংলাদেশের অতি পরিচিত পাখির মধ্যে ঘুঘু অন্যতম। এ পাখি নিয়ে যেমন রয়েছে প্রবাদ বাক্য তেমনি রয়েছে গল্প। পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে আজ এ পাখি হারিয়ে যেতে বলেছে। এ পাখি সংরক্ষণ করা না গেলে নতুন প্রজন্ম বর্ণমালা শিখতে শুধু বইয়ের পাতায় গড়বে ঘ-তে ঘুঘু পাখি দিচ্ছে ডাক। অথবা ঘুঘু করে ঘু-ঘু। আর শিশুকে সত্যিকারের ঘুঘু পাখি দেখাতে মাঠে-ঘাঠে নয় নিয়ে যেতে হবে চিড়িয়াখানায়। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রকৃতি বদলাচ্ছে আর বদলাচ্ছে পরিবেশও। এখন আর মাঠে-ঘাঠে ঘুঘু পাখি দেখা যাচ্ছে খুবই কম। অথচ এক সময় বাংলার মাঠে-ঘাঠে ঘুঘু পাখি ছিল ভুরি ভুরি। অবাধ বিচরণ ছিল প্রকৃতিতে। নিষ্ঠুর পাখি শিকারীদের গুলি আর ফাঁদে যখন পরিবেশ থেকে ঘুঘুসহ বিভিন্ন প্রজাতির পাখি হারিয়ে যাচ্ছিল, সরকার আইন করে পাখি শিকার বন্ধ করে। তারপরেও কি ঘুঘু প্রাণে রক্ষা পেয়েছে ? ঘুঘুর প্রধান খাদ্য ধান, গম ও ডালবীজ জাতীয় খাদ্য। আমাদের কৃষকেরা সচেতনতার পরিচয় না দিয়ে ফসল উৎপাদন ক্ষেতে মাত্রাতিরিক্ত সার ও বিষ মিশ্রিত খাদ্য খেয়ে ঘুঘুসহ কয়েক প্রজাতির পাখি প্রকৃতি থেকে উজাড় হচ্ছে। ঘুঘু পাখির জন্য নিরাপদ বাসস্থানেরও অভাব দেখা দিয়েছে। মাঠের খাদ্যে বিষ। অন্যদিকে চোরা শিকারীর কারণে গাছে বসা নিরাপদ নয়, তবে কিভাবে তারা প্রকৃতিতে টিকে থাকবে ? ঘুঘুর ডাক যেন আর শোনা যাচ্ছে না। অনেক আগে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে মাঠে-ঘাঠে নানা প্রজাতির প্রচুর ঘুঘু পাখি দেখা যেতো। অথচ বর্তমানে অতি পরিচিত ঘুঘু পাখি আর চোখে পড়ে না। এগুলো যেন এখন বিলুপ্তির মুখে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here