মন্টুর নামে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবিতে শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সংবাদ সম্মেলন

0
205

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোরের বেনাপোলে স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টুর নামে ‘মিথ্যা মামলা’ প্রত্যাহার ও তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগ। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ নুরুজ্জামান সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়েন।
তিনি বলেন, ‘আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত তদন্তকারী সংস্থা সুনির্দিষ্ট গ্রেফতারি পরোয়ানাসহ নিকটস্থ থানার সহযোগিতায় নিজেদের পরিচয় এবং অভিযোগ উপস্থাপনপূর্বক আসামিকে আটক এবং আদালতে হাজির করে বিচারকের অনুমতিসাপেক্ষে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন। কিন্তু কোন উদ্দেশ্যে গত ৩ জুন বেনাপোল পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী মন্টুকে সাদা পোশাকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, তা কারো বোধগম্য নয়।’
তিনি বলেন, ‘অবস্থাদৃষ্টে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তারিকুল আলম তুহিন নিরুদ্দেশের কথা স্মরণ করে মানুষ হতবিহ্বল হয়ে নাভারন বাজারে মন্টুর আটক অভিযানে অংশ নেওয়া মাইক্রোবাসটি আটকায়। শার্শা থানা প্রশাসন ও জনতার জিজ্ঞাসার মুখে তখন আটককারীরা নিজেদের র্যা ব সদস্য পরিচয় দিয়ে তার বিরুদ্ধে মামলার অধিকতর জিজ্ঞাবাদের কথা বলে নিয়ে যান; যা আইনের সুস্পষ্ট লংঘন।’
লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, ‘সরকার যেখানে গণতন্ত্রকে সুপ্রতিষ্ঠিত করে জনগণের কাছে শতভাগ জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, সেখানে কার ইঙ্গিতে শার্শার সাবেক ও বর্তমান চেয়ারম্যানদের ওপর গুলিবর্ষণ, লাঞ্ছনা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তালাবদ্ধ করার অপপ্রয়াস চালানো হচ্ছে?’
সংবাদ সম্মেলনে আরো বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মঞ্জু।তারা মন্টুকে দ্রুত মুক্তি দেওয়ার দাবি জানান। একই সঙ্গে দলের অন্য এক নেতাকে ইঙ্গিত করে তার ‘কালো টাকা ও অবৈধ আয়ের’ উৎস অনুসন্ধানের দাবি জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহীম খলিল, যশোর জেলা পরিষদের সদস্য ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অহিদুজ্জামান অহিদ, যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান, উপজেলার প্রায় সব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরাসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here