যশোরে (যমেক) আউট সোর্সিং এর ৬৫ কর্মচারীর বেতন থেকে চাঁদাবাজি ও আটক রাখার প্রতিবাদে মানববন্ধন

0
292

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর: যশোর মেডিকেল কলেজে হাসপাতাল (যমেক) আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে নিয়োগ পাওয়া ৬৫ জন কর্মচারীর বেতন থেকে চাদাবাজি ও বেতন আটক রাখার প্রতিকার চেয়ে শুক্রবার সকালে প্রেসক্লাব যশোরের সামনে যশোর মেডিকেল কলেজে আউটসোর্সিং ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতি যশোর সদর এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।
যশোর মেডিকেল কলেজে আউটসোর্সিং ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি মোঃ খায়রুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এসমাবেশে উপস্হিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শেখ মোঃ রমজান আলী সহ সকল কর্মচারীবৃন্দ।

এপ্রতিবাদ সমাবেশে নেতারা অভিযোগ করেন, প্রতিমাসে কর্মচারীদের রক্ত ঘামানো অন্তত তিন লাখ টাকার কমিশন এই প্রতিষ্ঠানের সুপারভাইজারে মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছে। ২০১২-১০১৩ অর্থবছর থেকে এভাবে কর্মচারীদের রক্ত চুষে খেলেও ‘রহস্যজনক’ কারণে ‘উষা সিকিউরিটিজ লিমিটেড’ এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না যমেক প্রশাসন।
তারা বলেন, ২০১৪ থেকে ২০১৭ টানা ৩ বছরের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজে (যমেক) আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে কর্মচারী (এমএলএসএস, টেবিলবয়, কুক, মশালচী, সিকিউরিটি গার্ড, সুইপার ও প্লাম্বার) নিয়োগের কার্যাদেশ পায় উষা সিকিউরিটিজ লিমিটেড নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। সরকারি বিধিমালা অনুযায়ী বর্তমানে কর্মচারীদের মূল বেতন ১৪ হাজার ৪৫০ টাকা। কার্যাদেশে এই নির্দেশনা থাকলেও প্রত্যেক কর্মচারীর প্রতিমাসের বেতন থেকে জোর পূর্বক ৫ হাজার টাকা করে ঘুষ আদায় করছে উষা সিকিউরিটিজ লিমিটেডের নিয়োগকৃত কোরবান আলী, জাহাঙ্গীর হোসেন ও ফয়সাল ইসলাম এতিন সুপারভাইজার।
কর্মচারীরা আরো অভিযোগ করে বলেন, এই সুপারভাইজারদের মাধ্যমে বেতনের চেক প্রদান এবং ঘুষের ৫হাজার টাকার চেকে সহি করে নেয়া হয়। প্রতিবাদ করতে গেলেই ঠিকাদারের নিয়োগকৃত দালালরা কর্মচারীদের নানাভাবে হুমকি-ধামকি দেয় এমনকি নতুন অর্থবছরে তাদের চাকরি খাওয়ার হুমকি-ধামকিও দেওয়া হয়। সম্প্রতি মামুন, হাসান, ইতি সহ কয়েকজন কর্মচারী প্রতিবাদ করলে ঠিকাদারের সুপারভাইজার একর্মচারিদেরকে মারধর করতে উদ্ধ্যত হয়েছিলো।
এখন এর প্রতিকার চেয়ে উর্ধতন কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনায় এমনববন্ধন সমাবেশে নেতৃবৃন্দ ও কর্মচারিরা অংশ নেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here