যশোর ২৫০শয্যা হাসপাতালে ছেলেশিশু চুরি

0
269

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর ২৫০শয্য জেনারেল হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ড (প্রসূতি ওয়ার্ড) থেকে রোববার বেলা ১১টার দিকে একদিন বয়সী একটি ছেলেশিশু চুরি হয়েছে। শিশুটির মায়ের নাম রুপালি খাতুন। বাবা যশোর সদরের রূপদিয়া এলাকার সাইদুল ইসলাম। পেশায় তিনি দর্জি। এটিই তাদের প্রথম সন্তান। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে এক নারীকে জনতা পাকড়াও করেছে; কোতয়ালী থানার এসআই সুকুমার কুণ্ডু ওই নারীকে থানায় নিয়ে গেছেন।

চুরি যাওয়া শিশুর বাবা মা

চুরি যাওয়া শিশুর দাদি সখিনা বেগম জানান, রোববার বেলা ১১টার দিকে তারা শিশুটিকে নিয়ে হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ডে অবস্থান করছিলেন। ওই সময় অজ্ঞাত এক নারী শিশুটিকে কোলে নিতে চাইলে তিনি দেন। শিশুটিকে আদর করার সময় সে আশপাশে সিট ফাঁকা আছে কি না দেখে আসার কথা বলে পালিয়ে যায়।
চুরি যাওয়া শিশুর মা রুপালি জানান, তিনি তার বাচ্চাটিকে নিয়ে বুকের দুখ খাওয়াচ্ছিলেন। এ সময় এক নারী এসে তার সঙ্গে আলাপ শুরু করে। এক পর্যায়ে বাচ্চাটিকে কোলে নিতে পীড়াপীড়ি শুরু করে ওই নারী। বাচ্চাটিকে অজ্ঞাত ওই নারীর কোলে দেওয়ার অল্প সময়ের মধ্যে সে ভিড়ের মধ্যে পালিয়ে যায়।


এদিকে, অভিযুক্ত মমতাজ বলেন, আমি জেলা মহিলালীগের সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এবং শুকতারা নামে একটি সমিতির সভাপতি। আমি আমার স্বামীর অসুস্থতার জন্যে হাসপাতালে এসেছিলাম। মহিলার কান্নাকাটি শুনে আমি শিশুটিকে খুঁজতে গেটের দিকে যাওয়ার পরামর্শ দিই। কিন্তু লোকজন আমাকে বিনা কারণে দোষী সাব্যস্ত করছে।’
জানতে চাইলে লেবার ওয়ার্ডে দায়িত্বরত ডাক্তার রবিউল ইসলাম বলেন, ‘শিশু চুরির ঘটনা শুনে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশকে ফোন করি।’
এদিকে, শিশু চুরির কথা শুনে ঘটনাস্থলে আসেন কোতয়ালী থানার এসআই সুকুমার কুণ্ডু।
তিনি জানান, হাসপাতালে এসে তিনি জানতে পারেন শিশু চুরির ঘটনায় সেখানে উপস্থিত লোকজন মমতাজ পারভীন নামে এক নারীকে পাকড়াও করেছেন। তদন্তে সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হবে। এবং শিশুটিকে উদ্ধারে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here